পবার হড়গ্রাম ইউপিতে মিলনের গণসংযোগ - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

পবার হড়গ্রাম ইউপিতে মিলনের গণসংযোগ



প্রেস বিজ্ঞপ্তি, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

পবা উপজেলার হড়গ্রাম ইউপিতে আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৯টা থেকে বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন দিনব্যাপি গণসংযোগ ও প্রচারণা করেন। তিনি সকাল ৯টায় কাশিয়াডাঙ্গা মোড় থেকে শুরু করে অত্র ইউনিয়নে সকল গ্রাম এবং পাড়ায় যান এবং ধানের শীষের জন্য ভোট প্রার্থনা করেন।

গণসংযোগ শুরু পুর্বে জনগণের উদ্যেশে মিলন বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি, জনগণের স্বাধীনতা, খুন, গুম, নির্যাতন ও গায়েবী মামলা থেকে মুক্ত করতে এই নির্বাচনে বিএনপি, ২০ দলীয় জোট ও জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে অংশ গ্রহন করেছেন। কিন্তু সরকারী দল নির্বাচকে প্রশ্নবিদ্ধ কের তুলছে। নির্বাচনী এলাকার মোহনপুরে বৃহস্পতিবার রাতে সরকারী দলীয় দুর্বৃত্তরা তাঁর সকল পোস্টার, ব্যানার, লিফলেট ছিঁড়েছে এবং নির্বাচনী অফিস ভেঙ্গে ফেলেছে। অত্র এলাকায় কোথাও তাঁর নির্বাচনী অফিস এবং পোস্টার ব্যানার নাই বলে তিনি অভিযোগ করেন। এছাড়াও তাদের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা হচ্ছে এবং বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে নেতকর্মী ও সমর্থকদের ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে। শুধু তাই নয় নির্বাচনী প্রচারণায় বাধা প্রদান করা হচ্ছে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

মিলন বলেন, বাধা যতই আসুক বিএনপিকে দমিয়ে রাখা যাবেনা। এবার ধানের শীষের বিজয় হবেই বলে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। নেতাকর্মী ও সমর্থকদের কোন প্রকার ভয় না করার আহবান জানান। সেইসাথে ভোট দেওয়ার জন্য প্রস্তুত হওয়ার পরামর্শ প্রদান করেন তিনি। সেইসাথে নির্বাচনে লেভেল প্লেইং ফিল্ড তৈরী এবং যারা আচরণ বিধি লংঘন করছে তাদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি প্রদানের দাবী জানান তিনি। উন্নয়ন বিষয়ে জানতে চাইলে মিলন বলেন, পবা-মোহনপুর এলাকায় ১০ বছরে কোন উন্নয়ন হয়নি। যত প্রকল্প এসেছে সবগুলোর অর্থ স্থানীয় সংসদ সদস্য ও অন্যান্য নেতাকর্মদের পকেটে চলে গেছে। তিনি নির্বাচিত হলে প্রতিটি প্রকল্পের অর্থ সঠিক ব্যবহার এবং নতুন নতুন প্রকল্প গ্রহন করে অত্র এলাকাকে একটি আধুনিক এলাকা হিসেবে পরিণত করা হবে। অত্র এলাকার পৌরসভা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মসজিদ, মন্দিওে উন্নয়ন অগ্রাধিকার ভিত্তিত্বে করা হবে। এছাড়াও সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, মাদক ও বাল্যবিবাহ বন্ধ করা হবে। এছাড়াও কৃষকদেও উন্নয়ন বেশী করে কৃষি কার্ড, বিনামূল্যে সার ও বীজ প্রদান এবং সামাজিক নিরাবেষ্টনী যেমন বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, মাতৃত্বকালীন ভাতা, শিক্ষা উপবৃত্তি বৃদ্ধিসহ আরো কল্যাণকর প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হবে জানান মিলন।

এসময় জেলা বিএনপি’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রায়হানুল আলম রায়হান, হড়গ্রাম ইউপি বিএনপি’র সভাপতি এরশাদ আলী মেম্বর, সাধারণ সম্পাদক আবু বক্কার সিদ্দিক, সাংগঠনিক সম্পাদক কাউসার আলী, নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহবায়ক রিয়াজ, পবা বিএনপি’র আহবায়ক কমিটির সদস্য আনোয়ারুল ইসলাম, শাহীন রেজা, মহানগর যুবদলের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট, সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান রিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুজ্জামান টিটু, জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি ইকো ও রাসিক ১৪ নং ওয়ার্ড সাবেক কাউন্সিলর টুটুলসহ অত্র ইউনিয়নের বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ও সাধারণ ভোটারগণ উপস্থিত ছিলেন।

গণসংযোগের সময় জনতার ঢল নামে। তারা বেগম জিয়ার মুক্তি ও ধানের শীষের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দিতে থাকেন। এছাড়াও অত্র ইউনিয়নের নেতাকর্মীরা এবং প্রার্থী নিজে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যান এবং ধানের শীষে ভোট প্রার্থনা করেন। অত্র এলাকার জনগণ সকল বাধা উপেক্ষা করে ধানের শীষে ভোট প্রদান করবেন প্রতিশ্রুতি দেন।



এ সম্পর্কিত আরো খবর