কাঁটাখালি পৌরসভায় গণসংযোগ বাধা দিয়ে বিএনপি’কে দমিয়ে রাখা যাবেনা:মিলন - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

কাঁটাখালি পৌরসভায় গণসংযোগ বাধা দিয়ে বিএনপি’কে দমিয়ে রাখা যাবেনা:মিলন



প্রেস বিজ্ঞপ্তি, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

পবা উপজেলার কাঁটাখালি পৌরসভায় আজ শনিবার সকাল ৯টা থেকে দিনব্যাপি বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন গণসংযোগ ও প্রচারণা করেন। কাঁটাখালি থেকে শুরু করে অত্র পৌরসভার সকল গ্রাম, পাড়া ও মহল্লায় যান এবং ধানের শীষের জন্য ভোট প্রার্থনা করেন। এসময়ে অত্র এলাকায় জনগনের মধ্যে আনন্দেও উচ্ছাস দেখা যায়।

তারা মিলনকে স্বাগত জানান এবং শুভেচ্ছা জানান। সেইসাথে তাঁকে দোয়া করেন। সেখানকরা জনগণ বলেন, কোন বাধাই ধানের শীষের বিজয় রোধ করতে পারবেনা। জনগণ এখন একতাবদ্ধ হয়েছে। সরকারী দল শত বাধা দিলেও তারা ভোট কেন্দ্রে যাবেন এবং ধানের শীষে ভোট প্রদান করবেন বলে প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। নারী ভোটারগণ বলেন, খালেদা একজন নারী, বর্তমান সরকার প্রধান একজন নারী। এই সরকার প্রধান কিভাবে একজন বয়োজেষ্ঠ্য নারীই নয় তিনি এদেশের তিনবারের সফল প্রধানমন্ত্রীকে মিথ্যা মামলায় কারাগারে আটকিয়ে রাখে। তারা বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য ধানের শীষে ভোট দেবেন বলে প্রতিশ্রতি দেন।

মিলন বলেন, এ নির্বাচনে বিএনপি’র অংশগ্রহন করার মুল লক্ষ হচ্ছে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা। দেশের মানুষকে এই স্বেরাচারী, নির্যাতনকারী জুমুলবাজ সরকারের কবল থেকে মুক্ত করা। বিএনপি কোন বানে ভেসে আসা দল নয় উল্লেখ করে মিলন আনো বলেন, বিএনপি ইচ্ছা করলে সরকার দলের অত্যাচারের দাঁতভাঙ্গা জবাব দিতে পারে। কিন্তু বিএনপি সন্ত্রাসী দল নয়। সন্ত্রাস করে ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য তারা নির্বাচন করেনা। তারা জনগণের মতামতের উপর বিশ^াস করে। কিন্তু সরকারী দল সর্বদা বিএনপি ও জনগণের উপর নিযার্তন করে যাচ্ছে। নির্বাচনে নিশ্চিত পরাজয় জেনে সরকার দলীয় সন্ত্রাসী ও ক্যাডাররা এখন বিএনপি’র নির্বাচন অফিস ভাঙ্গচুর, পোস্টার, ব্যানার ও লিফলেট ছিড়ে ফেলছে। জনগণকে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে। কিন্তু এভাবে সরকারের নৌকা কোনভাবেই তীরে ভীড়বেনা বলে জানান মিলন।

মিলন আরো বলেন, বাধা যতই আসুক এবার ধানের শীষের বিজয় হবেই। সাধারণ জনগণ ধানের শীষে ভোট দেওয়ার জন্য অপেক্ষা করছে। বাধা বা নির্বাচনী কাজে বাধা দিয়ে কোন লাভ হবেনা বলে তিনি উল্লেখ করেন। তিনি নেতাকর্মী ও সমর্থকদের কোন প্রকার ভয় না করার আহবান জানান। সেইসাথে ভোট দেওয়ার জন্য প্রস্তুত হওয়ার পরামর্শ প্রদান করেন তিনি। তিনি বলেন, বিএনপিা উন্নয়নে বিশ^াসী। এই এলাকায় যত উন্নয়ন হয়েছে বিএনপি’র আমলে হয়েছে। বর্তমান সাংসদ শুধু প্রকল্পের অর্থ লোপাটে ব্যস্ত সময় পার করেছে। শত শত কোটি লোপাট করে নিজের পকেট ভরেছে। ১০ অত্র এলাকায় কোন উন্নয়নমূলক কাজ তিনি করেননি বলে জানান মিলন। মিলন বলেন, নির্বাচিত হলে আগামী এই এলাকার উন্নয়নের জন্য মেগা প্রকল্প গ্রহন করা হবে। প্রতিটি রাস্তায় আলোকসজ্জা করা হবে। এছাড়াও উন্নয়নের আগামী ২০ বছরের জন্য পরিকল্পনা গ্রহন করা হবে। তিনি আরো বলেন, এই পরিকল্পনা অনুযায়ী উন্নয়নমূলক কাজ বাস্তবায়ন করবেন বলে জানান তিনি। এই উন্নয়নমূলক কাজগুলো করার জন্য তিনি সবার নিকট ধানের শীষে ভোট প্রার্থনা করেন।

গণসংযোগের সময় মিলনের সাথে জনতার ঢল নামে। তারা বেগম জিয়ার মুক্তি ও ধানের শীষের প্রার্থীকে বিজয়ী করতে বিভিন্ন ধরনের স্লোগান দিতে থাকেন। এছাড়াও অত্র ইউনিয়নের নেতাকর্মীরা এবং প্রার্থী নিজে ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যান এবং ধানের শীষে ভোট প্রার্থনা করেন। এসময় জেলা বিএনপি’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রায়হানুল আলম রায়হান, কাঁটাখালি পৌর বিএনপি’র সভাপতি জিয়াউল হক জিয়া, সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক হোসেন, সিনিয়র সহ-সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সহ-সভাপতি অধ্যাপক আমান আলী, ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আসাদ আলী, সাবেক কাউন্সিলর মোন্তাজ আলী ও আয়নাল হক, মহানগর যুবদলের সভাপতি আব্দুল কালাম আজাদ সুইট, জেলা যুবদলের সভাপতি মোজাদ্দে জামানী সুমন, মহানগর যুবদলের সধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান রিটন, সহ-সভাপতি বকুল, যুগ্ম সাধারণ স্মপাদক মিলন, দপ্তর সম্পাদক রাজিবুল ইসলাম ডিনপল, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম জনি, রাবি ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন ও মহানগর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি ফামিমসহ বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মী এবং সমর্থকগণ উপস্থিত ছিলেন।



এ সম্পর্কিত আরো খবর

রাজশাহী এর অন্যান্য খবরসমূহ