মনোহরগঞ্জে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে হামলা ভাংচুর লুটপাট - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

মনোহরগঞ্জে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে হামলা ভাংচুর লুটপাট



লাকসাম প্রতিনিধি, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

পুকুরে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে গতকাল মনোহরগঞ্জ উপজেলার নাথের পেটুয়া ইউপির কান্দি গ্রামে প্রতিপক্ষের হামলা, ভাংচুর ও লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ঘরের আলমিরায় থাকা নগদ টাকা, স্বর্নালংকার লুট ও খড়ের গাদায় আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নাথের পেটুয়া ইউপির কান্দি গ্রামের মৃত. চান মিয়ার ছেলে মোঃ বাহার উদ্দিন ও তার চাচাতো ভাই আবুল খায়েরের যৌথ মালিকানায় একটি পুকুর রয়েছে। ওইদিন ওই পুকুরে বাহের মিয়া বেশাল জাল দিয়ে মাছ ধরলে চাচাতো ভাই আবুল খায়েরের বড় মেয়ে কামরুন্নাহার মাছ ভাগবাটোয়ারা নিয়ে চাচাতো বোনের সাথে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে। এ ঘটনার জের ধরে ওইদিন তিন দফায় তাদের মারামারির ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় আহত বাহার উদ্দিন, স্ত্রী লাকি আক্তার, মেয়ে ববি আক্তার ও ছেলে নাজিম উদ্দিন সহ ৪জন আহত হয়। তারা চিকিৎসার জন্য লাকসাম সরকারি হসপিটালে আসলে এ সুযোগে আবুল খায়েরের নেতৃত্বে বাহার উদ্দিনের ঘরে হামলা করে নগদ ৫০হাজার টাকা ও ৪ভরি গহনা নিয়ে যায়। এসময় তারা বাড়ির পাশে থাকা খড়ের গাদায় আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়।

ওয়ার্ড আ’লীগ সভাপতি মোঃ রুহুল আমিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ওইদিন যে ঘটনা ঘটেছে আমি সামাজিক ভাবে শালিস বৈঠকে বসতে চেয়েছি। কিন্তু আবুল খায়ের আমার কোন কথা না শুনে উল্টো বাহার উদ্দিনের নামে থানায় একটি মামলা দায়ের করে।

ওয়ার্ড মেম্বার কামাল হোসেন বলেন, এ ঘটনার খবর পেয়ে আমি সাথে সাথে ঘটনাস্থলে আসি এবং ঘটনার সত্যতা পেয়ে আমার চেয়ারম্যানকে জানাই।

স্থানীয় চেয়ারম্যান মাষ্টার মোঃ রুহুল আমিন বলেন, আমার স্থানীয় মেম্বারের কাছ থেকে ঘটনার সংবাদ পেয়েছি। কিন্তু কেউ এখনো কোন অভিযোগ নিয়ে আসেনি। তারপরও বিষয়টা দেখছি।
সংবাদ পেয়ে নাথের পেটুয়া পুলিশ ফাঁড়ির এস.আই জুলফিকার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।



এ সম্পর্কিত আরো খবর

কুমিল্লা এর অন্যান্য খবরসমূহ
মনোহরগঞ্জ এর অন্যান্য খবরসমূহ