কুমিল্লায় সৎমা আগুনে ঝলসে দিল শিশুকে - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

কুমিল্লায় সৎমা আগুনে ঝলসে দিল শিশুকে



নিউজ ডেস্ক, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

কুমিল্লায় রিফাত নামে ৮ বছরের এক শিশুর গায়ে আগুন দিয়েছেন সৎমা। আগুনে শিশুটির শরীরের ৮০ শতাংশ ঝলসে গেছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

বর্তমানে তাকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি বিভাগে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

রিফাত কুমিল্লার বরুড়া উপজেলার জলম ইউনিয়নের চিতড্ডা গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে। তার শরীরে আগুন দেয়ার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে সৎমা ও বাবাকে আটক করেছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্র জানায়, কয়েক বছর আগে রিফাতে মা তার বাবাকে ডিভোর্স দিয়ে চলে যায়। পরে চাঁদপুর জেলার কচুয়ার রহিমা নগরের বাচ্চু মিয়ার কন্যা খোদেজা বেগমকে দ্বিতীয় বিয়ে করেন তিনি।

আর সেই থেকেই সৎমায়ের নির্যাতন সহ্য করে আসছে রিফাত। রিফাতের বাবা খালেক মিয়া সদর দক্ষিণ উপজেলার বাগমারা এলাকায় হোটেলে কাজ করেন।

সে সুবাদে তিনি সদর দক্ষিণ উপজেলার বাগমারা এলাকার আনোয়ার মিয়ার বাড়িতে ভাড়ায় বসবাস করেন।

কিছুটা দুষ্টু প্রকৃতির হওয়ায় রিফাতকে প্রায়ই মারধর করতেন তার সৎমা খোদেজা।

সোমবার বিকালে কোনো এক অপরাধে তিনি রিফাতকে ঘরের ভেতর রশি দিয়ে বেধে তার গায়ে আগুন ধরিয়ে দেন। পরে বিষয়টি স্থানীয়রা টের পেয়ে রিফাতকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসে।

তাৎক্ষণিক তাকে ভর্তি করা হয় মেডিকেলের বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইউনিটে। চিকিৎসকরা জানিয়েছে, শিশুটির অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক।

রাত সাড়ে ১০টায় কুমিল্লা মেডিকেলের বার্ন ইউনিটে গিয়ে দেখা যায় রিফাতের পুরো শরীরে সাদা ব্যান্ডেজে ঢাকা। মুখের যে অংশটুকু খোলা, সেখানেও রয়েছে আগুনে ঝলসে যাওয়ার চিহ্ন। আর ফেল-ফেল চোখে নির্বাক এদিক সেদিক দেখছে সে।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে সদর দক্ষিণ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মামুন অর রশিদ জানান, শিশুর গায়ে আগুন দেয়ার অভিযোগে বাবা ও সৎমা দুজনকে আটক করেছি। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। তবে কি কারণে শিশুটির গায়ে আগুন দেয়া হয়েছে তা এখনো নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।

ওসি মামুন জানান, জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে খোদেজা বেগম শুধু বলেছে রিফাত প্রচুর দুষ্টুমি করে।



এ সম্পর্কিত আরো খবর

কুমিল্লা এর অন্যান্য খবরসমূহ