কুমিল্লায় বিচারকের খাস কামরায় হত্যা মামলার আসামীকে হত্যা! - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

কুমিল্লায় বিচারকের খাস কামরায় হত্যা মামলার আসামীকে হত্যা!



বারী উদ্দিন আহমেদ বাবর/ কেফায়েত উল্লাহ মিয়াজী, কুমিল্লা, (খবর তরঙ্গ ডটকম)


কুমিল্লা আদালতে হত্যা মামলার এক আসামী হাজিরা দিতে এসে আরেক হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটিয়েছে! বিচারকের খাস কামরায় হত্যা মামলার আসামীর ছুরিকাঘাতে অপর আসামীর মৃত্যুর ঘটনায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। কুমিল্লার অতিরিক্ত তৃতীয় জেলা ও দায়ের জজ আদালতের বিচারক ফাতেমা ফেরদাউছের আদালতে শুনানির সময় আজ সোমবার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।


নিহতের নাম মোম ফারুক হোসেন (২৮)। সে জেলার মনোহরগঞ্জ উপজেলার অহিদ উল্লাহর ছেলে। তিনি পেশায় রাজমিস্ত্রি ছিলেন। ঘাতক মোঃ হাসান পার্শ্ববর্তী লাকসাম পৌরসভার ভোজপাড়া গ্রাামের সহিদুল্লাহর ছেলে বলে জানা গেছে। নিহত ফারুক ও ঘাতক হাসান মামাতো ফুফাতো ভাই।


আদালত সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকালে কুমিল্লার আদালতে মনোহরগঞ্জ উপজেলায় ২০১৩ সালের ২৬ আগষ্ট সংঘটিত একটি হত্যা মামলায় নিহত ফারুক ও ঘাতক হাসান মনোহরগঞ্জ থানার জিআর ৮৩/১৩ ও এসটি ২০২৭/১৫ হত্যা মামলার আসামী হিসেবে হাজিরা দিতে আসেন হাসান ও ফারুক।

কুমিল্লার তৃতীয় জেলা জজ আদালতের বিচারক ফাতেমা ফেরদৌসের আদালতে বিচারকাজ শুরু হওয়ার পূর্বেই হাসান তার সাথে থাকা একটি ছুরি বের করে ফারুককে আঘাতের চেষ্টা করে। ধাওয়া খেয়ে ফারুক এজলাস থেকে বের হয়ে বিচারকের খাস কামরায় প্রবেশ করে। তখন বিচারকের খাস কামরায় ঢুকেই তাকে উপর্যপুরী ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে হাসান।


এসময় দায়িত্বরত পুলিশ সদস্যরা হাসানকে আটক করে। ফারুকের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্ররেণ করে।


খবর পেয়ে কুমিল্লা জেলা জজ আদালত ও কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পরিদর্শন করেন কুমিল্লার পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম। তিনি আদালত প্রাঙ্গণে সাংবাদিকদের জানান, দুই আসামির ব্যক্তিগত বিরোধের জের ধরেই এই হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। আটক হাসানকে জিজ্ঞাসাবাদে সে জানায়, যে মামলায় তারা হাজিরা দিতে এসেছে সে মামলাটিতে ফারুকের কারণেই হাসানকে আসামি হতে হয়েছে। এ থেকে সৃষ্ট ক্ষোভের জের ধরে হাসান আজকে আদালত প্রাঙ্গণেই ছুরিকাঘাতে হত্যা করে ফারুককে।


কুমিল্লা এর অন্যান্য খবরসমূহ
জেলা এর অন্যান্য খবরসমূহ