গুজব বিরোধী সেবা সপ্তাহ পালন করেন ইব‌নে তাইমিয়া স্কুল এন্ড ক‌লেজে - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

গুজব বিরোধী সেবা সপ্তাহ পালন করেন ইব‌নে তাইমিয়া স্কুল এন্ড ক‌লেজে



অনলাইন ডেস্ক, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

গুজব বিরোধী সেবা সপ্তাহ পালন করেন ইব‌নে তাইমিয়া স্কুল এন্ড ক‌লেজে। ওই কর্মসূচির অংশ হিসেবে গতকাল মঙ্গলবারে (৩০জুলাই), কু‌মিল্লা গুজব বিরোধী সেবা সপ্তাহ পালন। এ উপলক্ষে ব্যাপক প্রচারণা অব্যাহত রয়েছে। মাদক, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস,কু‌মিল্লা নেউরা উচ্চ বিদ্যালয় ও ইব‌নে তাইমিয়া স্কুল এন্ড ক‌লেজে ইভটিজিং ও গুজবের বিরুদ্ধে ছাত্র সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। মান্যবর পুলিশ সুপার, কুমিল্লা সৈয়দ নুরুল ইসলাম বিপিএম (বার), পিপিএম মহোদয়ের নির্দেশনার আলোকে গুজব বিরোধী সপ্তাহ পালন। এ উপলক্ষে সচেতনতামূলক প্রচার-প্রচারণা অংশ হিসে‌বে কু‌মিল্লা নেউরা উচ্চ বিদ্যালয় ও ইব‌নে তাইমিয়া স্কুল এন্ড ক‌লেজে। বিশেষ অতিথিঃ সহকারী পু‌লিশ সুপার জনাব প্রশান্ত পাল, মোঃ মামুন-অর-র‌শিদ পি‌পিএম।

প্রধান অতিথিঃ আব্দুল্লাহ আল- মামন, এ মত‌বি‌নিয় সভা ক‌রেন অধ্যক্ষ মু. শিফকুল আলম হেলাল। গুজব সম্পর্কে বলেন, এর আগে দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টিতে ব্যর্থ হয়ে, আন্দোলনে ব্যর্থ হয়ে একটি স্বার্থান্বেষী মহল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই গুজব ছড়িয়েছে। এটা দেশ ও দেশের বাইরে থেকে করা হয়েছে। কারণ এর মাধ্যমে উস্কে দিয়ে আড়ালে থাকা যায়। তারা আরো হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, যারা গুজব ছড়াচ্ছে তাদের কোনো ছাড় নয়। যেই হোক আইনের আওতায় নেওয়া হবে এবং সেটা শুরু হয়েছে।

গণপিটুনিতে কেউ মারা গেলে হত্যা মামলার আসামি হতে হবে মনে করিয়ে দিয়ে তারা বলেন, নিশ্চয় কেউ হত্যা মামলার আসামি হতে চাইবে না। কোনো সন্দেহ হলে ৯৯৯ এ ফোন দিতে হবে। পিপি এম বলেন, ছেলেধরা গুজব ছড়িয়ে এ পর্যন্ত ৮ জন নিহত হয়েছেন, অনেকে আহত হয়েছেন। তাদের কেউ ছেলেধরা ছিলেন না। সারাদেশ থেকে ৩১ মামলায় ১০৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, এদের অনেকই সরকারবিরোধী। পুলিশ প্রধান বলেন, গুজব ছড়ানোর কাজে ব্যবহৃত ৬০টি ফেসবুক লিংক ও ২৫টি ইউটিউব লিংক এবং ১০টি নিউজ পোর্টাল বন্ধ করা হয়েছে। এই সমস্ত ফেসবুক লিংক ও ইউটিউব লিংক এর মাধ্যমে সুপরিকল্পিতভাবে গুজব ছড়ার হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত ৩০জুলাই “গুজব ছড়াবেন না, আইন নিজের হাতে তুলে নিবেন না” এ স্লোগানকে সামনে রেখে গুজব বিরোধী সচেতনতা সপ্তাহ উপলক্ষে স্থানীয় সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়ের মাধ্যমে কর্মসূচির উদ্বোধন করেছিলেন । এসময় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও হাট বাজার, বাসষ্ট্যান্ডসহ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে কাউকে সন্দেহ হলে পুলিশে খবর দেন। আইন যেনো কেউ হাতে না তুলে।



এ সম্পর্কিত আরো খবর

কুমিল্লা এর অন্যান্য খবরসমূহ
শিক্ষাঙ্গণ এর অন্যান্য খবরসমূহ