আগৈলঝাড়ায় গভীর রাতে এক যুবককে ডাকাত সন্দেহে গনধোলাই - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

আগৈলঝাড়ায় গভীর রাতে এক যুবককে ডাকাত সন্দেহে গনধোলাই



নাসির উদ্দিন সৈকত, ঝালকাঠি, বরিশাল, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

বরিশালের আগৈলঝাড়ায় গভীর রাতে  এক যুবককে ডাকাত সন্দেহে গনধেলাই দিয়েছে এলাকাবাসী। এলাকা সুত্রে জানাগেছে, বরিবার দিবাগত রাত ৩-৩০ মিনিটে উপজেলার  নগর বাড়ি গ্রামের মোঃ আবু তালেব সরদারের বাড়িতে ঢুকে ঘরের দরজা ভাংগার  চেষ্টা চালালে ওই সময় ঘড়ের লোকজন টেরপেয়ে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আশে-পাশের লোকজনদের  খবর দিলে লোকজন এসে ওই কে ধরে গনধোলাই দিতে শুরু করে।

 

জানাগেছে, সে  একই গ্রামের মৃত-আঃ করিম খাঁন ওরফে নাগর খাঁনের পুত্র পলাশ খাঁন । গনধোলাই খেয়ে সে এক পর্যায় তার হাতের ব্যাচলেট ও পায়ের চপ্পল রেখে  পালিয়ে যায়। এলাকার লোকজন ওই রাতে পলাশের বাড়ি গিয়ে তার বড় ভাই এ্যাড. শওকত খাঁনকে বিষয়টি জানায়। তখন  সওকত খান পলাশকে ঘড়ে না পেয়ে সে এলাকার লোকজনদের জানায় বিষয়টি আমি দিনে দেখব। পলাশ বর্তমানে পলাতক রয়েছে । বিষয়টি নিয়ে এলাকার লোকজন যথেষ্ট ুব্ধ রয়েছে। জানা যায় পলাশের বিরুদ্ধে এলাকায় বিস্তার অভিযোগ রয়েছে।
আগৈলঝাড়ায় বেড়াতে এসে পরিবারের সদস্যদের অজ্ঞান করে সর্বস্ব লুটেনেয়।বরিশালের আগৈলঝাড়ায় বেড়ারে এসে পরিবারের সদস্যদের খাবরের সাথে চেতনা নাশক দ্রাব্য মিশ্রীত খাবার খাইয়ে অজ্ঞান করে টাকা ¯¦র্ণাংলকার সহ সর্বশ্ব লুনেট নিয়ে চম্পট দেয়। গুরুতর অবস্থায় ১জনকে উপজেলা স্বস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।
জানাগেছে, উপজেলার কালুপারা গ্রামের বিবাহ রেজিষ্ট্রার কাজী মনির মুন্সীর বাড়িতে রোববার আত্বীয় পরিচয় দিয়ে চাাঁদপুর জেলার মতলব উপজেলার লতা বেগম বেড়াতে আসে। তাদের আনা দধি খেয়ে কাজী মনির মুন্সীর মা রহিমা বেগম (৬০), স্ত্রী শারমিন আক্তার স্বর্না (২১) দুই বছরের ছেলে খালিদ অজ্ঞান হয়ে যায়। এই সুযোগে তারা ঘরে থাকা স্বর্নাংলকার ও নগদ টাকা সহ-ঘড়ের মূল্যবান মালামাল লুট করে নিয়ে চম্পট দেয়। অজ্ঞান অবস্থায় রহিমা বেগমকে গতকাল সোমবার সকালে উপজেলা স্বস্থ্য কমপেক্্ের ভর্তি করা হয়েছে।


এ সম্পর্কিত আরো খবর

জেলা এর অন্যান্য খবরসমূহ
বরিশাল এর অন্যান্য খবরসমূহ