শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে পা কাটা রোগীর চিকিৎসা করতে ২০ হাজার টাকা চাইলেন ডাক্তার - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে পা কাটা রোগীর চিকিৎসা করতে ২০ হাজার টাকা চাইলেন ডাক্তার



শরীয়তপুর প্রতিনিধি, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

মেহেদী হাসান শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে পা কাটা শিশু রোগীর পরিবারের কাছে চিকিৎসা করাতে ডাক্তার খরচ চাইলেন ২০হাজার টাকা । সরকারী হাসপাতালে টাকা ছাড়া চিকিৎসা না পেয়ে ক্লিনিকে গিয়ে চিকিৎসা করান রোগীর পরিবার। মঙ্গলবার ১অক্টোবর বেলা ১২টায় শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসলে এই টাকা চান ডাক্তার। 
রোগীর পরিবার সুত্রে জানা যায়, জেলার সদর উপজেলার চিকন্দী দক্ষীন শৌলা গ্রামের প্রবাসী শামীম মুন্সীর ১৮মাস বয়সের মেয়ে সাইমার বটিতে পা কেটে যায়। সাইমাকে তার পরিবার শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল নিয়ে আসলে জরুলি বিভাগ থেকে  তাদের ডাক্তার আকরাম এলাহীর রুমে পাঠান।

শিশু রোগী সাইমাকে নিয়ে তার পরিবার  সরকারী হাসপাতালের ২০নাম্বার রুমে যান এবং ডাক্তার আকরাম এলাহীকে দেখান।  শিশু রোগীকে দেখে পা কাটার চিকিৎসা করানোর জন্য রোগীর পরিবারের কাছে খরচ বাবদ ২০ হাজার টাকা চান ডাক্তার  আকরাম এলাহী। সরকারী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ডাক্তার টাকা চাওয়ায় রোগীর পরিবার অল্প টাকায় ক্লিনিকে গিয়ে চিকিৎসা করান। 


শিশু রোগী মা পাপিয়া বলেন, আমার মেয়ে পা বটিতে কেটে যায়। শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে আসলে ডাক্তার আকরাম এলাহী চিকিৎসার জন্য ২০হাজার টাকা চান। ডাক্তার ২০হাজার টাকার কমে চিকিৎসা করবে না বলে যানিয়ে দেন। সরকারী হাসপাতালে চিকিৎসা না পেয়ে ক্লিনিকে গিয়ে চিকিৎসা করায়। 


অভিযুক্ত ডাক্তার আকরাম এলাহী বলেন, শিশু রোগীর পায়ের রগ কেটে গেছে তাই ক্লিনিকে অপারেশ করাতে হবে। ক্লিনিকে চিকিৎসা করতে খরচ লাগে। তাই চিকিৎসা খরচ বাবদ ২০হাজার টাকা চেয়েছি।


জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ খলিলুর রহমান বলেন, শরীয়তপুর সদর হাসপাতাল চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের কাছে টাকা চেয়েছে এমন কোনো অভিযোগ আসেনি। আভিযোগ আসলে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।


এ সম্পর্কিত আরো খবর

জেলা এর অন্যান্য খবরসমূহ