অ্যান্ড্রু কিশোরের ১০ লাখ টাকা নেয়ার নেপথ্য কারণ জানালেন সামিনা চৌধুরী - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

অ্যান্ড্রু কিশোরের ১০ লাখ টাকা নেয়ার নেপথ্য কারণ জানালেন সামিনা চৌধুরী



অনলাইন ডেস্ক, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

বাংলাদেশের বরেণ্য কণ্ঠশিল্পী অ্যান্ড্রু কিশোর অসুস্থ। তিনি হরমোনজনিত সমস্যায় ভুগছেন। তিনি এখন সিঙ্গাপুরের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

চিকিৎসা নিতে যাওয়ার আগে অ্যান্ড্রু কিশোর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে ১০ লাখ টাকা অর্থ সহায়তা নিয়েছেন। অ্যান্ড্রু কিশোরের মতো একজন প্রতিষ্ঠিত ও সামাজিক মর্যাদাসম্পন্ন শিল্পীর অর্থ সহায়তা নেয়ার বিষয়টি নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সমালোচনার ঝড় উঠেছে। আবার অনেকে অ্যান্ড্রু কিশোরের পক্ষ নিয়ে সমালোচনার কড়া জবাব দিয়েছেন।

এদের একজন কন্ঠশিল্পী সামিনা চৌধুরী। অ্যান্ড্রু কিশোরের সঙ্গে বহু জনপ্রিয় গানে কণ্ঠ দেয়া এ শিল্পী জানালেন প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে অ্যান্ড্রু কিশোরের অর্থ সহায়তা নেয়ার নেপথ্যের গল্প।

অ্যান্ড্রু কিশোরের ১০ লাখ টাকা নেয়া নিয়ে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন সামিনা চৌধুরী। সেখানে তিনি লিখেছেন- অ্যান্ড্রু কিশোর প্রধানমন্ত্রীর কাছে অনুদানের কোনো আবেদন করেননি। প্রধানমন্ত্রী নিজ থেকে তাকে এ অনুদান দিয়েছেন। অ্যান্ড্রু কিশোরকে অনেকটা জোর করেই এ টাকা দিয়েছেন শেখ হাসিনা।

সামিনা চৌধুরীর স্ট্যাটাসটি যুগান্তর পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হলো-

‘বরেণ্য কণ্ঠশিল্পী অ্যান্ড্রু কিশোর (‘দা)-কে ডাকা হয়েছিল একটা প্রোগ্রামের ব্যাপারে আলাপ করার জন্য। অ্যান্ড্রু দা মাসখানেক ধরে হরমোনের সমস্যায় ভুগছেন এটি ওনার ছোটবেলা থেকেই সমস্যা। এ কারণে ওজন একটু কমে গিয়েছে, স্ক্রিন কালার একটু চেঞ্জ হয়েছে…। এটি জিজ্ঞেস করার পর এবং জানার পর প্রধানমন্ত্রী নিজে থেকে দাদাকে ১০ লাখ টাকা পরিমাণ অর্থের একটি চেক দিয়েছেন।

অ্যান্ড্রু দা নিতে না চাইলে প্রধানমন্ত্রী তাকে বলেন যে, চেকটি তিনি বড়বোন হিসেবে দিতে চাইছেন…। একটা রাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রী যদি নিজে থেকে কাউকে কিছু দিতে চান, সেটি উপেক্ষা করা তাকে অসম্মান করা বৈকি! আমি যতটুকু জেনেছি, টাকার ব্যাপারটি এটুকুই।

মোমেন বিশ্বাসের কাছ থেকে আমি পুরো ঘটনাটি জানতে পারি। আমরা অনেক কষ্টে একজন করে ক্ষণজণ্মা মৌলিক কণ্ঠশিল্পী পাই। তাকে ভালোবাসা দিয়ে মনে সাহস দিয়ে বাঁচতে ও গান গেয়ে যেতে সাহায্য করা যে আমাদের এবং আমাদেরই দায়িত্ব। ১০ লাখ টাকার জন্য যে অ্যান্ড্রু দার মতো শিল্পী কারও কাছেই টাকা চাইবেন না, এ ব্যাপারে অন্তত আমি নিশ্চিত।

আমি তার স্নেহধন্য ছোট বোন, সবসময় তাদের স্নেহের ছায়ায় আছি, থাকতে চাই আজীবন। আল্লাহর ইচ্ছায় আমরা সবাই এখন প্রিয় শিল্পী অ্যান্ড্রু কিশোরের জন্য প্রার্থনা করি, তিনি যেন সুস্থ হয়ে ফেরেন। যেন খুশি মনে গেয়ে ওঠেন- ‘আমার সারা দেহ খেয়ো গো মাটি… এই চোখ দু’টো মাটি খেয়োনা…।’


এ সম্পর্কিত আরো খবর