‘মৃত মায়ের প্রতি চার্চের অন্যায় আচরণই আমাকে ইসলাম গ্রহণে অনুপ্রাণিত করেছে’লিজি অ্যানজরিন - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

‘মৃত মায়ের প্রতি চার্চের অন্যায় আচরণই আমাকে ইসলাম গ্রহণে অনুপ্রাণিত করেছে’লিজি অ্যানজরিন



অনলাইন ডেস্ক, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

নালিউড অভিনেত্রী ও উদ্যোক্তা লিজি অ্যানজরিন অবশেষে তার খ্রিস্টান ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম গ্রহণের বিষয়ে মুখ খুলেছেন। তার ইসলাম গ্রহণের পিছনে কোনো পুরুষ নয়, তার মৃত মায়ের প্রতি চার্চের অন্যায় আচরণই তাকে ইসলাম গ্রহণে অনুপ্রাণিত করেছে বলে নিজের ইস্ট্রাগ্রামে এই তথ্য জানিয়েছেন লিজি অ্যানজরিন।

সুশ্রী এই অভিনেত্রী হঠাৎ করে পাঁচ বছর আগে খ্রিস্টান ধর্ম ত্যাগ করে ইসলামে ধর্মান্তরিত হন।

অনেকেই বিশ্বাস করেন যে তার বিশ্বাস ও ধর্ম পরিবর্তনের পিছনে রয়েছে একজন পুরুষ। এসব মানুষের ধারণা যে, তিনি তার ভালবাসার মানুষের জন্য নিজের বিশ্বাসে পরিবর্তন করেছেন।

মানুষের এসব ভুল ধারণা খণ্ডন করে সম্প্রতি লিজি অ্যানজরিন তার ইন্ট্রাগ্রাম পেজে নিজের ধর্ম পরিবর্তনের কারণ স্পষ্ট করেছেন।

ইন্ট্রাগ্রামে তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী, তার খ্রিস্টান বাবাকে বিয়ের পূর্বে তার মা ছিলেন একজন মুসলিম। তার মা যখন মারা যান, তখন চার্চ তার মায়ের মৃতদেহ গ্রহণে অস্বীকৃতি জানায়। তার মায়ের অপরাধ ছিলেন তিনি খ্রিস্টান ছিলেন না।

তিনি বলেন, ‘আমার মা মারা গেলে তার লাশ সৎকার করতে ১০টিরও বেশি চার্চ অস্বীকৃতি জানায়।’

যাইহোক, এই অভিনেত্রী এখনো একাই রয়ে গেছেন। যদিও এই একা থাকার রহস্য তিনি অনুসারীদের কাছ প্রকাশ করেননি।

তিনি বলেন, ‘এটি আমাকে খ্রিস্টান ধর্ম ত্যাগ করতে বাধ্য করেছে। আমি আমার মায়ের আত্মার শান্তির জন্য প্রার্থনা করছি।’

এর আগে তিনি এক সাক্ষাতাকারে জানিয়েছিলেন যে, তার মা হজ পালনের জন্য মক্কা ভ্রমণ করলে তার সঙ্গে তিনিও যেতেন। এ কারণে অনেকেই তাকে একজন মুসলিম বলেই মনে করত।

অ্যানজরিন বলেছিলেন, ‘আসলে আমার ইসলামে ধর্মান্তর নতুন কিছু নয়। আমি অনেক থেকেই একজন মুসলিম এবং এমনকি এর সমর্থনে আমার কিছু ছবিও আছে। যদিও আমার নাম এলিজাবেথ যা একটি খ্রিস্টান নাম। আমার বাবা এ নামটি আমাকে দিয়েছেন কারণ তিনি একজন খ্রিস্টান।’

তিনি আরো বলেছিলেন, ‘এছাড়াও আয়েশা নামে আমার একটি মুসলিম নাম রয়েছে যা আমার মা রেখেছেন। কারণ আমার মা একজন মুসলিম। এছাড়াও, আমার মায়ের পরিবারের সদস্যরা আমার নাম দিয়েছে সখিনা। এমনকি আমার মেয়ের নাম রাখা হয়েছে রাফিদা। সুতরাং আমি দুই ধর্মের সঙ্গে বড় হয়েছি এবং আমি বাবা মায়ের একমাত্র সন্তান হওয়ায় আমাকে একাধিক নাম দেয়া হয়েছে।’

ইনফরমেশন নাইজেরিয়া ডটকম অবলম্বনে



এ সম্পর্কিত আরো খবর

আন্তর্জাতিক এর অন্যান্য খবরসমূহ
ধর্ম এর অন্যান্য খবরসমূহ