যেভাবে আটক হয় ভারতীয় পাইলট অভি নন্দন - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

যেভাবে আটক হয় ভারতীয় পাইলট অভি নন্দন



নিউজ ডেস্ক, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

ভারতের যুদ্ধ বিমানের পাইলট পাকিস্তানের হাতে আটক হওয়ায় দুশ্চিন্তায় পড়েছে দেশটির বিমানবাহিনী। তবে এ ঘটনায় উল্লাস করছে পাকিস্তানের বিমানবাহিনী। পাকিস্তানের পত্রিকা ডন তার অনলাইনের প্রতিবেদনে জানায়, ভারতের দুটি বিমান ভূপাতিত করার পাশাপাশি একজন পাইলটকে আটক করে চমকে দিয়েছে পাকিস্তান। পাকিস্তান দাবি করেছে, বুধবার সকালে তারা দিনের আলোতে ভারতের দুটি যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করে। এর একটি পড়ে পাকিস্তাননিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে, অন্যটি পড়ে ভারতীয় অংশে।

পাকিস্তানের মাটিতে যে বিমানটি ভূপাতিত হয় তার পাইলট ছিলেন উইং কমান্ডার  অভি নন্দন। প্রত্যক্ষদর্শী মোহাম্মদ রাজ্জাক চৌধুরী (৫৮) অভি নন্দনকে আটকের ঘটনা বর্ণনা করেন। তিনি জানান, বুধবার সকাল ৮টা ৪৫ মিনিটে দুটি যুদ্ধবিমানের লড়াইয়ের শব্দ শোনেন তিনি। ধোঁয়াও দেখতে পান। দুটি বিমানেই আগুন লেগে গিয়েছিল। একটি নিয়ন্ত্রণরেখা ধরে এগিয়ে গেলেও আরেকটিতে আগুন লেগে দ্রুত নিচে নামতে থাকে। তার বাড়ি থেকে এক কিলোমিটার দূরে ওই বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। এ সময় তিনি প্যারাস্যুট নিয়ে একজনকে নামতে দেখেন।

রাজ্জাকের বাড়ির প্রায় এক কিলোমিরটার দূরে বিধ্বস্ত হয় বিমানটি। তার বাড়ির এক পাশে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়, আরেক পাশে প্যারাসুট দিয়ে নেমে আসেন বিমানটির পাইলট। এসময় তিনি সুস্থ ছিলেন। তাকে ধরার জন্য স্থানীয় একদল তরুণ ছুটে যায়। প্রত্যক্ষদর্শী রাজ্জাক জানান, তরুণদের বিধ্বস্ত বিমানটির কাছে যেতে তিনি নিষেধ করেন। তবে পাইলটকে যাতে ধরা হয় সে নির্দেশনা দেন। ভারতীয় ওই পাইলটের কাছে একটি পিস্তল ছিল। তরুণদের কাছে জানতে চান, তিনি যেখানে নেমেছেন সেটি ভারত নাকি পাকিস্তান। তরুণদের মধ্যে একজন উত্তর দেন; এটি পাকিস্তান। এসময় তিনি নিজেকে উইং কমান্ডার অভিনন্দন বলে পরিচয় দেন এবং স্লোগান দিয়ে আবার জানতে চান এটি ভারতের ঠিক কোথায়। এরপর তরুণদের মধ্যে একজন আবার তাকে জায়গাটি পাকিস্তান বলে জানায়। এসময় পাইলট পানি খেতে চান। তরুণদের মধ্যে কেউ কেউ তখন পাকিস্তান জিন্দাবাদ বলে স্লোগান দিতে থাকে। পাইলট এ সময় ফাঁকা গুলি ছোড়েন। সঙ্গে সঙ্গে তরুণরা পাথর হাতে তুলে নেয়। পাইলট এ সময় তরুণদের দিকে পিস্তল তাক করেন। তরুণরা তখন তাকে ধাওয়া করে।

পাইলট তখন পেছনের দিকে প্রায় আধা কিলোমিটার দৌড়ে যান। এরপর তাকে আরও কয়েকবার গুলি ছুড়তে দেখা যায়। এক পর্যায়ে একটি পুকুরে ঝাঁপিয়ে পড়েন তিনি। এসময় পকেট থেকে কিছু কাগজ বের করে গিলে ফেলার ও কিছু কাগজ পানিতে ভিজিয়ে নষ্ট করার চেষ্টা চালান পাইলট। তরুণরা ভারতীয় ওই পাইলটকে তার অস্ত্র পানিতে ফেলে দিতে বলেন। এসময় সবাই মিলে তাকে জাপটে ধরে।কেউ কেউ তাকে কিলঘুষিও মারতে থাকে। এক পর্যায়ে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছেন পাকিস্তানি এক সেনা কর্মকর্তা। তিনি গাড়িতে করে ওই পাইলটকে নিয়ে যান ভিমবার একটি সেনা ক্যাম্পে। দুই দেশের মধ্যে চলমান উত্তেজনার মধ্যে বুধবার ভারতের পক্ষ থেকে পাকিস্তানের একটি এবং পাকিস্তানের পক্ষ থেকে ভারতের দুটি বিমান ভূপাতিত করার দাবি করা হয়। এরপর প্রথমে ভারতের দুইজন পাইলট এবং তার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এক পাইলটকে আটকের কথা জানায় পাকিস্তানের সেনাবাহিনী। এক ভিডিওতে পাইলট অভি নন্দনকে রক্তাক্ত অবস্থায় দেখা গেলেও পরের ভিডিওতে তাকে স্বাভাবিক অবস্থায় চা পান করতে দেখা যায়। পাইলট অভিনন্দন অবিলম্বে ফেরত চেয়েছে ভারত।



এ সম্পর্কিত আরো খবর

আন্তর্জাতিক এর অন্যান্য খবরসমূহ