গোলাপগঞ্জে বস্তিতে আগুন, ৩শিশুসহ ৫জন নিহত - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

গোলাপগঞ্জে বস্তিতে আগুন, ৩শিশুসহ ৫জন নিহত



অনলাইন ডেস্ক, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

শনিবার (১৮মার্চ) শেষ রাতে সিলেটের গোলাপগঞ্জে বস্তিতে আগুন, ৩শিশুসহ ৫জন নিহত । এ ঘটনায় আরো ২জন দগ্ধ হয়েছে।

গোলাপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে এম ফজলুল হক শিবলী এ তথ্য নিশ্চিত করে জানান, নিহতের মধ্যে একজন শিশু, দুইজন কিশোর ও দুইজন নারী রয়েছে ।

মিরপুরের মোল্লা বস্তির আগুন নিয়ন্ত্রণে
ঢাকা: রাজধানী ঢাকার মিরপুর ১২ নম্বর সেকশনে ইয়াসিন আলী মোল্লার বস্তির আগুন নিয়ন্ত্রণে এসেছে। তবে আগুনে বস্তির প্রায় দু’হাজার বসতঘর পুরোপুরি পুড়ে গেছে। এতে আহত হয়েছেন একজন।

সোমবার (১২ মার্চ) ভোর ৪টার দিকে এ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হলে ফায়ার সার্ভিসের ২১টি ইউনিটের প্রায় চার ঘণ্টার চেষ্টায় সকাল পৌনে ৮টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে। বস্তিতে ঢোকার পথে ইটের স্তুপ ও ভ্যান থাকায় ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ঢুকতে দেরি হয়, যে কারণে আগুন নেভাতে বেশি সময় লাগে বলে দাবি সংশ্লিষ্টদের।

ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স অধিদফতরের পরিচালক (অপারেশনস) মেজর শাকিল নেওয়াজ আগুন নিয়ন্ত্রণের বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা জানান, খবর পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে আগুন নেভাতে ঘটনাস্থলে ছুটে এসে কাজ শুরু করেন দমকলকর্মীরা। তবে বস্তির গলি সরু হওয়ায় পানিবাহী গাড়ি প্রবেশে সমস্যা হয়। সবগুলো ঘর লাগোয়া হওয়ায় এবং বাতাসের তীব্রতার কারণে দ্রুত আগুন ছড়িয়ে পড়ে।

বস্তিবাসীরা জানান, প্রবেশপথে বাড়ি তৈরির জন্য আনা ইটের স্তুপ এবং ভ্যানগাড়ি দাঁড় করিয়ে রাখায় ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি প্রবেশে দেরি হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বস্তির উত্তর পাশে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। দমকা বাতাসের কারণে আগুন দ্রুত বস্তির দক্ষিণ সীমানা পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে। তবে ফায়ার সার্ভিসের কর্মী ও স্থানীয়দের তৎপরতায় পূর্ব দিকের কিছু ঘর রক্ষা পায়।

আগুনে সর্বস্ব হারানো ঋতু আক্তার বলেন, সাহেবরা বাড়ি বানাইবো, ইট আইনা রাখছে রাস্তায়। ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি তিনবার আইসা ফেরত গেছে। সময়মত গাড়ি ঢুকতে পারলে আমার ঘরডা পুড়তো না। সাহেবরা ঘর বানাইবো, এহন আমার সব পুইড়া গেল। আমারে কে দিব এই ক্ষতিপূরণ?

আহাজারি করে তিনি বলেন, তিন মাস হইছে আমি ক্যান্সার থেইক্কা উঠছি। আমার তিনডা ঘর, কত জিনিসপত্র। কিচ্ছু রক্ষা করতে পারলাম না। পোলা-মাইয়া লইয়া কোনোমতে এক কাপড়ে বাইর হইয়া আইছি।আমার দুইডা সেলাই মেশিন, মাইয়ারা মেশিন চালাইয়া খাইতো। এহন আমার কি হইব?

বৃদ্ধা আমেনা বলেন, ঘুমের মধ্যে আছিলাম। আগুন আগুন চিল্লানী হুইনা ৪ নাতি লইয়া বাইর হইছি। মুহূর্তের মইধ্যে সব শেষ হইয়া গেল।

স্থানীয়রা জানান, প্রায় ৭০ বিঘা জমির ওপর এই বস্তি। এখানে প্রায় ৭-৮ হাজার টিনের ও কাঠের তৈরি ঘর

পুড়ে যাচ্ছে মিরপুর ১২ নম্বরের ইয়াসিন আলী মোল্লার বস্তি ছিল। এ বস্তিতে ২৫ হাজার বাসিন্দা বসবাস করে। প্রাথমিকভাবে অগ্নিকাণ্ডের কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানাতে পারেনি ফায়ার সার্ভিস।

 


এ সম্পর্কিত আরো খবর

জাতীয় এর অন্যান্য খবরসমূহ
ঢাকা এর অন্যান্য খবরসমূহ
সিলেট এর অন্যান্য খবরসমূহ