২৯জুলাই রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশ: মিনু - খবর তরঙ্গ
শিরোনাম :

২৯জুলাই রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশ: মিনু



রাজশাহী সংবাদদাতা, (খবর তরঙ্গ ডটকম)

আগামী ২৯ জুলাই দুপুর ২টায় রাজশাহী বিভাগীয় মহাসমাবেশ অনুষ্ঠিত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। সাহেব বাজার জিরো পয়েন্ট/গণকপাড়া/সেনাদীঘির মোড়ের যে কোন স্থানে রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।

গণতন্ত্রের মা আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া’র কারামুক্তি ও বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানের অবৈধ রায় ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে রাজশাহী বিভাগীয় মহাসমাবেশ উপলক্ষে প্রস্তুতিমূলক মতবিনিময় সভায় এই সিদ্ধান্ত হয়।

সাংবাদিকদের সাথে সংক্ষিপ্ত সংবাদ সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার অন্যতম উপদেষ্টা, সাবেক মেয়র ও সংসদ সদস্য জননেতা মিজানুর রহমান মিনু এই ঘোষনা দেন।

তিনি বলেন, রাজশাহী থেকে অতিতে সকল আন্দোলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলনও রাজশাহীর বিভাগীয় সমাবেশ থেকে শুরু করা হবে। শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের স্বাধীনতার ঘোষনায় এবং বলষ্ঠি নেতৃত্বে বাংলাদেশ স্বাধীন হয়।


মিনু বলেন, রাজশাহীর মানুষ মাথা পিছনে করে রাখেনা। সর্বদা তারা সামনের দিকে এগিয়ে যায়। সামনের দিকে এগুতে সকল প্রকার বাধা অতিক্রম করে মহাসমাবেশকে ইতিহাসের পাতায় লেখার মত করা হবে। সমাবেশ স্থলকে জনসমুদ্রে পরিণত করা হবে। কোন বাধাই বিএনপি’র এই মহাসমাবেশ রুখে দিতে পারবেনা। মানুষ এখন আর এই সরকারকে চায়না। জোর করে ভয়ভীতি ও হামলা মামাল দিয়ে জনগণকে জিম্মি করে রেখেছে। দেশে এখন কোন প্রকার গণতন্ত্র নাই। অথচ শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান দেশকে স্বাধীন করে বহুদলীয় গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করেন। আর বেগম খালেদা তৎকালীন স্বৈরশাসক এরশাদের নিকট হতে পূনরায় গণতন্ত্র পুণরুদ্ধার করেন। আবার এখন গণতন্ত্র বিনষ্ট হয়ে গেছে। মানুষ স্বাধীতার স্বার্বভৌমত্বর ফল ভোগ করতে পারছেনা। দেশ এখন বাকশালে পরিণত হয়েছে। দেশের এই অবস্থা থেকে উত্তোরনের জন্য এবং বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্যই এই সমাবেশ। বেগম জিয়ার মুক্তি ও তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনা ও একনায়কতন্ত্র কায়েমকারী ও বাকশালীদের নিকট থেকে দেশকে রক্ষা করতে মহাসমাবেশে জনতার ঢল নামবে বলে আশা করেন মিনু।

উপস্থিত অতিথিবৃন্দ বলেন, দেয়ালে পিট ঠেকে গেছে। এই সরকার ও নির্বাচন কমিশন তাদের ওয়াদা রক্ষা করেনি। বরং তারা বর্তমান সরকারের আজ্ঞাবহ হয়ে কাজ করেছে। অবৈধভাবে ক্ষমতায় এসে সরকার পেটয়া বাহিনী দিয়ে বিএনপি নিধনে নেমেছে। সেইসাথে বেগম খালেদা জিয়াকে অবৈধভাবে কারাগারে রেখে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। বেগম জিয়ার মুক্তির আন্দোলনে এখন আর কারো সঙ্গে জোট নয়। বিএনপি একাই রাজপথে নামবে এবং কঠোর আন্দোলন গড়ে তুলে বেগম জিয়াকে কারাগার থেকে মুক্তি করা হবে বলে জানান তারা। বিভিন্ন জেলা থেকে নেতৃবৃন্দ আগামী ২৯ তারিখ বিভাগীয় সমাবেশে নিজ নিজ জেলা থেকে নেতাকর্মীদের নিয়ে এসে সভাস্থল জনসমুদ্রে পরিনত করবেন বলে ঘোষনা দেন।
বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির রাজশাহী বিভাগীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও রাজশাহী বিভাগীয় যুগ্ম সম্পাদক এ্যাডভোকেট সৈয়দ শাহীন শওকত এর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা হেলালুজ্জামান তালুকদার লালু ও হাবিবুর রহমান হাবিব।

বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক, রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সভাপতি ও সাবেক সিটি মেয়র মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, বিএনপি কেন্দ্রীয় কমিটির ত্রান ও পুনবার্সন বিষয়ক সহ-সম্পাদক ও রাজশাহী মহানগর বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট শফিকুল হক মিলন, বিএনপি কেন্দ্রীয় কমটির সদস্য নাদিম মোস্তফা, সাইফুল ইসলাম মার্সাল, রাজশাহী জেলা কমিটির আহবায়ক আবু সাইদ চাঁদ, জেলা বিএনপি’র সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট মতিউর রহমান মন্টু।


আরো উপস্থিত ছিলেন নবাবগঞ্জ জেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি আমিনুল ইসলাম, নাটোর জেলা বিএনপি’র আহবায়ক হাজী আমিনুল হক, আহবায়ক হাফিজুর রহমান, জয়পুরহাট জেলা বিএনপি’র সভাপতি আব্দুল গফুর মন্ডল, বগুড়া জেলার যুগ্ম আহবায়ক সাইফুল ইসলাম, সিরাজগঞ্জ জেলার যুগ্ম আহবায়ক সাইদুর রহমান বাচ্চু। এছাড়াও মহানগর বিএনপি’র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওয়ালিউল হক রানা, জেলা বিএনপি’র সদস্য ও তানোর পৌর মেয়র মিজানুর রহমান, মহানগর যুবদলের সভাপতি আবুল কালাম সুইট, জেলা যুবদলের সভাপতি মোজাদ্দেদ জামানী সুমন, মহানগর যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুর রহমান রিটন, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মাহফুজুল হাসনাইন হিকোল, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক শফিকুল আলম সমাপ্ত, মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি জাকীর হোসেন রিমন, সাধারণ সম্পাদক আবেদুর রেজা রিপন, মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি আসাদুজ্জামান জনি, জেলা ছাত্রদলের সভাপতি রেজাউল করিম টুটুল, মহানগর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রবি, জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম জনি ও সহ-সভাপতি রবিউল ইসলাম কুসুমসহ বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগি সংগঠনের অন্যান্য নেতারা উপস্থিত ছিলেন।



রাজনীতি এর অন্যান্য খবরসমূহ
রাজশাহী এর অন্যান্য খবরসমূহ