মনোহরগঞ্জে বাইপাস নির্মাণ ঘিরে সড়কের দুপাশের ক্ষতিগ্রস্থ মানুষের আর্ত্মনাত

কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলার মৈশাতুয়া ইউপির ৬নং ওয়ার্ড হাটিরপাড় গ্রামের ভিতর দিয়ে ৫ কোটি ৬৮ লাখ টাকা বরাদ্দে নতুন ভাবে বাইপাস নির্মাণ ঘিরে ওই সড়কের দু’পাশে বসবাসরত ক্ষতিগ্রস্থদের আর্ত্মনাতসহ ব্যাক্তিমালিকানাধীন ভূমি ওই সড়কের জন্য নিতে গিয়ে নাটকীয় ভূমিকায় এলাকার জনমনে নানাহ বির্তকের সৃষ্টি হয়েছে।



স্থানীয় ক্ষতিগ্রস্থ লোকজন জানায়, সরকার গ্রামের ভিতর দিয়ে বাইপাস নির্মাণ করবে তা অবশ্য ভাল কথা। নির্মানাধীন সড়কের পশ্চিমপাশের্^ বহু সরকারী সম্পদ থাকা শর্তেও সেটা ব্যবহার না করে পূর্ব পাশে ব্যাক্তিমালিকানাধীন ভূমি জবরদখল করবে এটা কিন্তু ঠিক নয়। সরকার জনস্বার্থে সড়ক নির্মাণে ব্যাক্তিমালিকানাধীন ভূমি নিতে হলে পরিমান মত ভূমি একোয়ার করতে হবে এবং ক্ষতিগ্রস্থ মালিকদের ক্ষতিপূরন দিবে এটাই নিময় কিন্তু এ ব্যাপারে কারো যেন মাথা ব্যাথা নেই। এছাড়া এ সড়কটির কাজের মান নিয়েও নানাহ গুঞ্জন চলছে। এবং সরঞ্জাম ব্যবহার নিয়ে এলাকার জনমনে নানাহ কথাবার্তা উঠেছে।
এ ব্যাপারে উক্ত সড়কের ঠিকাদার ছিলোনিয়ার্স এন্টার প্রাইজের প্রতিনিধি ইব্রাহিম মিয়া জানায়, স্থানীয় প্রশাসনসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ টেন্ডার ও ষ্টিমিটসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র অনুযায়ী এ বাইপাস সড়কের জন্য ভূমি নির্ধারন করার প্রেক্ষিতেই আমরা কাজ শুরু করেছি। ২৪ ফুট এ বাইপাস সড়কের জন্য যেটুকু জায়গা সরকারি ভাবে থাকার কথা সেটা কিন্তু নেই। ফলে জনস্বার্থে এ সড়কে কাজ করতে গিয়ে দু’পাশের কিছু ব্যাক্তিমালিকানার ভূমি পড়েছে। এতে কিছু লোক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে এটা সত্য। তারপরও আমি চেষ্টা করব দু’পাশের সমান্তরাল রেখে সড়কটির কাজ শেষ করতে। এব্যাপারে সকলের সহযোগিতা কামনা করছি।



এ ব্যাপারে স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার আবুল কালাম জানায়, এ ওয়ার্ডের উপর দিয়ে ৫ কোটি ৬৮ লাখ টাকা বরাদ্দে বাইপাস সড়ক নির্মাণ হচ্ছে এতে আমরা অনেকটা খূশি। তবে সড়ক নির্মান করতে গিয়ে ব্যাক্তিমালিকানাধীন কিছু জায়গা নিতে হচ্ছে এবং কোন কোন স্থানে গাছপালা কাটা যাচ্ছে এটা সত্য আমি ঠিকাদারকে বলেছি সড়কের দু’পাশে ব্যাক্তিমালিকানাধীন ভূমি সমান ভাবে নিয়ে কাজ শেষ করতে এবং সেই ভাবেই সড়কের কাজ এগিয়ে যাচ্ছে।