লাকসামে ছাত্রলীগ নেতা আহাদ- মিজানের মৃত্যু বার্ষিকী পালিত

রবিবার ২৯ জুলাই লাকসাম ন.ফ সরকারি কলেজ ছাত্রলীগ নেতা শহীদ আবদুল আহাদ ও মিজানুর রহমানের ২০তম মৃত্যু বার্ষিকী পালিত হয়েছে। ১৯৯৮ সালের ২৯ জুলাই লাকসাম ন.ফ সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের এক বর্ধিত সভায় ছাত্রশিবিরের অতর্কিত হামলা চালায়। এতে কলেজ ছাত্রলীগের দু’নেতা গুরুতর আহত অবস্থায় ১৯৯৮ সালের ২৯ জুলাই ঢাকা একটি হাসপাতালে মৃত্যু বরণ করেন। আহত হয় অসংখ্য নেতাকর্মী। ওইদিন থেকে লাকসাম উপজেলা ছাত্রলীগ আহাদ-মিজান হত্যা দিবস পালন করে আসছে। দিবসটি উপলক্ষে ২৭ জুলাই ভোরে শহীদ ছাত্রলীগ নেতা মোঃ আবদুল আহাদ ও মিজানুর রহমানের কবর জিয়ারত, পুস্পঅর্পণ, কোরআনখানি, মিলাদ মাহফিল ও বিকালে লাকসাম সদরে খুনিদের ফাঁসির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করে।

 

দৌলতগঞ্জ বাজার ব্যাংক রোড চত্ত্বরে উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আবদুল আউয়ালের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মোঃ সাইফুল ইসলামের পরিচালনায় প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন লাকসাম উপজেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহাদ-মিজান হত্যা মামলার বাদী এড.মোঃ রফিকুল ইসলাম হিরা।বিশেষ অতিথি বক্তব্য রাখেন উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক ও পৌর মেয়র অধ্যাপক আবুল খায়ের, উপজেলা যুবলীগের সদস্য ও পৌর প্যানেল মেয়র-২ আবদুল আলিম দিদার, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোশারফ হোসেন মজুমদার, সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাজেদুল ইসলাম স্বজল, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মোঃ সাইফুল ইসলাম রাজু, ন.ফ সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক পায়েল কবির।

 

প্রতিবাদ সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেন- খুনিরা হত্যা মামলার বিচার ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে হাইকোর্টে রিটের মাধ্যমে মামলার সকল কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে। ইনশাল্লাহ অচিরেই মামলার স্থগিতাদেশ প্রত্যাহারের মাধ্যমে কার্যক্রম শুরু হবে। আগামীদিনে সকল ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করে প্রিয় নেতা মো. তাজুল ইসলামের নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহবান জানান।

 

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা প্রবীর সাহা, আনিছুর রহমান কাঞ্চন, আলহাজ্ব আবদুল আজিজ, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি নিজাম উদ্দিন শামীম চেয়ারম্যান, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাবেক সদস্য সচিব ওমর ফারুক চেয়ারম্যান, যুবলীগ নেতা মনিরুল ইসলাম রতন, লাকসাম উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আবদুল আউয়াল মজুমদার, লাকসাম উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি নাহিদুল কবিরসহ লাকসাম উপজেলা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।