লাকসামে বাস চালকের অবহেলায় প্রাণ গেল হেলপার

কুমিল্লার লাকসামে বাস চালকের অবহেলায় প্রাণ গেলো হেলপার। সোমবার দুপুরে কুমিল্লা-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়ক উপজেলা পরানপুর বাজারে এ দূর্ঘটনা ঘটে। নিহত হেলপার সুমন মিয়া (২৫) সে মুরাদনগর উপজেলা পাঁচপুকুরিয়া গ্রামের ইউনুছ মিয়ার ছেলে। দূর্ঘটনার সাথে সাথে স্থানীয়রা সড়কে নিরাপত্তা ও স্প্রীড ব্রেকারের দাবীতে উত্তেজিত জনতা প্রায় দেড় ঘন্টা সড়ক অবরোধ করে। খবর পেয়ে হাইওয়ে পুলিশ লাকসাম থানা পুলিশের সহযোগিতায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন। ওইস্থানে গত এক মাসে সড়ক দূর্ঘটনায় ৪ ব্যাক্তির প্রানহানী ঘটেছে।

 

স্থানীয়রা জানান, চাঁদপুর থেকে ছেড়ে আসা কুমিল্লাগামী বোগদাদ ট্রান্সপোর্ট (ঢাকা মেট্রো ব-১৪-৮৮৩৪) একটি বাস যাত্রী নিয়ে দ্রুতগতি পরানপুর নামকস্থানে বিপরীত থেকে আরেকটি বাসকে সাইড দিতে গিয়ে ওই বাসের হেলপার গাড়ীর থেকে পড়ে যায় এবং চাকায় পৃষ্ট হয়ে সুমন নামের হেলপার ঘটনাস্থলে নিহত হয়। দূর্ঘটনার সংবাদ পেয়ে স্থানীয়রা গাড়ীটিকে থামানোর চেষ্টা চালায় তবে চালক দ্রুতগতিতে গাড়ী চালিয়ে পালিয়ে যায়। এসময় স্থানীয়রা সড়কে নিরাপত্তা ও স্প্রীড ব্রেকারের দাবীতে সড়ক অবরোধ চালিয়ে বিক্ষোভ করে। সড়ক অবরোধের ফলে প্রায় দেড়ঘন্টা যানচলাচল বন্ধ থাকায় যাত্রীরা চরম দূর্ভোগে পড়ে। দূর্ঘটনার সংবাদ পেয়ে লাকসাম ক্রসিং হাইওয়ে পুলিশ ও লাকসাম থানা পুলিশ যৌথভাবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। উল্লেখ্য ওইস্থানে গত এক সপ্তাহে সড়ক দূর্ঘটনায় ৩ ব্যাক্তির প্রানহানী ঘটেছে।

 

এ বিষয়ে লাকসাম হাইওয়ে ক্রসিং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ সফিকুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন,স্প্রীড ব্রেকার স্থাপনের আশ্বাসের ফলে অবরোধ প্রত্যাহার করা হয়। নিহতের লাশ উদ্ধার করে মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। বাসটি আটক করা যায়নি ও চালক পলাতক রয়েছে।