লাকসামে ছাত্রলীগ নেতা হত্যা চেষ্টা মামলার প্রধান আসামি গ্রেফতার

ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতির দায়ে করা মামলায় একই ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ও ওয়ার্ড মেম্বার আনোয়ার হোসেন আনুকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আজ শনিবার বিকেলে কুমিল্লার লাকসাম উপজেলার উত্তরদা ইউনিয়নের মামিশ্বর গ্রাম থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গত ২৮ মে ইউনিয়ন ছাত্রলীগ সভাপতি রাসেল মিয়া রাশেদকে হত্যা চেষ্টা মামলায় তাকে আজ গ্রেফতার দেখানো হয়েছে। মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, লাকসাম উপজেলার উত্তরদা ইউনিয়নের ৬ নাম্বার ওয়ার্ড রামারবাগ গ্রামে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে স্বেচ্ছাসেবকলীগ ও ছাত্রলীগের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছে। ওই বিরোধের জের ধরে গত ২৮ এপ্রিল একটি তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ওই গ্রামে ছাত্রলীগ সভাপতি রাশেদের নেতৃত্বে একটি হামলার ঘটনা ঘটেছে। ওই ঘটনার রেশ ধরে একমাস পর একই তারিখে গত ২৮ মে আরেকটি তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে রামারবাগ গ্রামের সিরাজুল হকের ছেলে স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার ও ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন আনু ও তার অনুসারীরা একই গ্রামের কানু মিয়ার ছেলে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি রাসেল মিয়া রাশেদ ও তার অনুসারীদের উপর অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এতে রাশেদসহ অন্ততঃ ১০জন গুরুতর আহত হয়। ওই সময় হামলাকারী আনোয়ার হোসেন মেম্বার রাশেদকে হত্যার চেষ্টা চালায়। এতে অস্ত্রের আঘাতে ছাত্রলীগ সভাপতি রাশেদের একটি কান কেটে যায়। ঘটনার পরদিন ২৯ মে রাশেদ বাদী হয়ে আনোয়ার হোসেন আনু মেম্বারকে প্রধান আসামি করে ১৭ জনের বিরুদ্ধে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ এনে লাকসাম থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। দীর্ঘ ১৪দিন পর আজ শনিবার বিকেলে প্রধান আসামি আনোয়ার হোসেন আনু মেম্বারকে পুলিশ গ্রেফতার করে। এদিকে হামলা ও পাল্টা হামলার ঘটনায় গত ২৯ মে স্ব স্ব সংগঠন দলের পদ থেকে ওই দুই নেতাকে অব্যাহতি প্রদান করেন। অপরদিকে মামলার প্রধান আসামি স্বেচ্ছাসেবকলীগের বহিষ্কৃত সভাপতি ওয়ার্ড মেম্বার আনোয়ার হোসেন আনুকে গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে লাকসাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ নিজাম উদ্দিন বলেন, আগামীকাল রবিবার সকালে গ্রেফতারকৃত আসামিকে আদালতে পাঠানো হবে।