লাকসামে মা- ছেলে-মেয়েসহ আরও ২২ জন করোনায় আক্রান্ত: সর্বমোট ১৩৫

কুমিল্লার লাকসামে মা, ছেলে, মেয়েসহ আরও ২২ জন নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে উপজেলায় করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১৩৫ জনে দাঁড়িয়েছে। এখানে এ পর্যন্ত আক্রান্তদের মধ্যে মারা গিয়েছেন একজন এবং সুস্থ হয়েছেন ১৩ জন।


স্থানীয় স্বাস্থ্যবিভাগ সূত্র জানা যায়, আজ শনিবার লাকসামে ৬১টি নমুনার রিপোর্ট আসে। তাদের মধ্যে ২২ জনের পজিটিভ ও ৩৯টি রিপোর্ট নেগেটিভ।


আক্রান্তরা হলেন, শহরের পশ্চিমগাঁও এলাকার ৩৩ বছর বয়সী মা, ১০ বছর বয়সী ছেলে ও ৩ বছর বয়সী কন্যা, মধ্য লাকসামের ২৪ বছর বয়সী তরুণ, দক্ষিণ লাকসামের ৫০ বছর, ৫৫ বছর ও ৩৪ বছর বয়সী তিন পুরুষ, নাঙ্গলকোটের ৩৯ বছর বয়সী যুবক, উত্তর বাজারের ৫২ বছর বয়সী নারী, পূর্ব লাকসামের ৫০ বছর বয়সী ব্যক্তি,  ৫নং ওয়ার্ডের ২১ বছর বয়সী তরুণ, পশ্চিমগাঁওয়ের ২৬ বছর তরুণ, চাঁদপুরের ৪৩ বছর বয়সী ব্যক্তি, কাজীপাড়ার ২৫ বছর বয়সী তরুণ, কাদ্রার ২৮ বছর বয়সী যুবক, মোহাম্মদপুরের ৩৬ বছর ও ৩৪ বছর বয়সী দুই যুবক।


এছাড়াও ৫৫ বছর, ৩২ বছর, ৭০ বছর, ৬৩ বছর ও ৬৫ বছর বয়সী পাঁচজন পুরুষ রয়েছেন, যাদের সুনির্দিষ্ট ঠিকানা জানা যায়নি।


লাকসাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. আবদুল মতিন ও ডা. আলমগীর হোসেন জানান, উপজেলায় এ পর্যন্ত ৮৩২ জনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। তাদের মধ্যে রিপোর্ট এসেছে ৭৪৩টি।


আজ নতুন ২২ জনসহ সর্বমোট ১৩৫ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। বাকী ৬০৮টি রিপোর্ট নেগেটিভ। এখনো রিপোর্ট প্রক্রিয়াধীন রয়েছে ৮৯টি। এখানে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়ে একজন মৃত্যুবরণ করেছেন। আক্রান্তদের মধ্যে ইতোমধ্যে ১৩ জন সুস্থ হয়ে ওঠেছেন, তাদের মধ্যে ১২জনকে ছাড়পত্র দেয়া হয়েছে। আক্রান্ত সকলের নিয়মিত খোঁজ-খবর নেয়ার পাশাপাশি প্রয়োজনীয় চিকিৎসাসেবা দিয়ে যাচ্ছে করোনা র‌্যাপিড রেসপন্স টিমের সদস্যরা।


লাকসাম উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ আবদুল আলী বলেন, লাকসামে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দিনদিন বেড়েই চলেছে, যা উদ্বেগজনক। করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে হলে স্ব স্ব অবস্থান থেকে সকলকে সতর্ক হতে হবে। তিনি সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার পরামর্শ দেন।