রবিবার, জানুয়ারী 23, 2022
রবিবার, জানুয়ারী 23, 2022
রবিবার, জানুয়ারী 23, 2022
spot_img
Homeজাতীয়ছাত্র মৃত্যুর ঘটনায় শোক-প্রতিবাদ

ছাত্র মৃত্যুর ঘটনায় শোক-প্রতিবাদ

রাজধানীর শাহবাগ মোড়ে বাসচাপায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র তৌহিদুজ্জামান নিহত হওয়ার ঘটনায় আজ বুধবার শোক ও প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেছেন শিক্ষার্থীরা। ছাত্র নিহত হওয়ার ঘটনায় অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে পুলিশ শাহবাগসহ ঢাকা  শ্ববিদ্যালয়সংলগ্ন কিছু এলাকায় যান চলাচল বন্ধ করে দিলে আজ নগরজুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। বেলা একটার দিকে ওই সব সড়ক যান চলাচলের জন্য খুলে দিলে পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি ঘটে। ধীরে ধীরে যান চলাচল স্বাভাবিক হচ্ছে।শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিরাজুল ইসলাম প্রথম আলো ডটকমকে বলেন, ছাত্র নিহত হওয়ার ঘটনায় গতকাল রাতে শাহবাগসহ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার আশপাশে ব্যাপক গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। আজ এ ধরনের অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে পুলিশ সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সংলগ্ন এলাকায় যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। বেলা একটা থেকে ওই সব সড়কে যান চলাচল শুরু হয়। শোক-প্রতিবাদ কর্মসূচিবেলা ১১টার দিকে প্রগতিশীল ছাত্রজোট ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যানটিন থেকে কফিন মিছিল নিয়ে শাহবাগে যায়। সেখানে সাধারণ শিক্ষার্থীরাও জড়ো হন। পরে গায়েবানা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।দুপুর পৌনে ১২টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের ব্যানারে শোকযাত্রা করে। আর দুপুর ১২টার দিকে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের শিক্ষার্থীরা অপরাজেয় বাংলার সামনে মানববন্ধন করেন। গতকাল মঙ্গলবার শাহবাগ মোড়ে বাসচাপায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র তৌহিদুজ্জামান নিহত হন। তাঁর বাড়ি কিশোরগঞ্জে। তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের ২০৮ নম্বর কক্ষে থাকতেন। তাঁর বাবা বাচ্চু মিয়া ব্যবসায়ী, মা নাসিমা আক্তার গৃহিণী। তিন ভাই ও এক বোনের মধ্যে তৌহিদ সবার ছোট ছিলেন। যানজটে নাকাল নগরবাসী বাসচাপায় তৌহিদুজ্জামান নিহত হওয়ার ঘটনায় অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি এড়াতে পুলিশ আজ সকালে হোটেল রূপসী বাংলার মোড়, মত্স্য ভবন মোড়, কাঁটাবন, পুরাতন হাইকোর্ট ও নীলক্ষেত এলাকায় গাড়ি চলাচল বন্ধ করে দেয়। তবে পুলিশের পক্ষ থেকে বিকল্প কোনো পথের নির্দেশনা না দেওয়ায় এবং আগে থেকে এ খবর জানা না থাকায় গন্তব্যে রওনা হয়ে বিপাকে পড়ে মানুষ। নগরজুড়ে সৃষ্ট তীব্র যানজটে দুর্ভোগ পোহাতে হয় যাত্রীদের।গতকাল সন্ধ্যার দিকে তৌহিদের মৃত্যুর খবর ক্যাম্পাসে ছড়িয়ে পড়লে শিক্ষার্থীরা শাহবাগ মোড়ে এসে তিন-চারটি গাড়ি ভাঙচুর করেন। পরে শাহবাগ থেকে বাংলামোটর, নিউমার্কেট, কাঁটাবনসহ আশপাশে আরও অর্ধশত যানবাহন ভাঙচুর করেন তাঁরা। এ সময় একটি বাসে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। শাহবাগ মোড়ে ট্রাফিক পুলিশ বক্সেও আগুন দেওয়া হয়।
২০০৫ সালের ২৮ মে শাহবাগে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান একই বিশ্ববিদ্যালয়ের মনোবিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী শাম্মী আক্তার।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments