আরেকদফা বাড়ল বিদ্যুতের দাম

(খবর তরঙ্গ ডটকম)  পাইকারি ও খুচরা পর্যায়ে শনিবার থেকে বিদ্যুতের নতুন দাম কার্যকর হয়েছে বলে জানিয়েছে নিয়ন্ত্রণ সংস্থা বিইআরসি। সংস্থাটি বলছে, বিদ্যুতের নতুন দাম কার্যকর হলেও কত বাড়ানো হয়েছে তা জানতে আরো সপ্তাহখানেক অপেক্ষা করতে হবে। বিইআরসি থেকে নির্ভর যোগ্য সুত্র থেকে জানাযায় শনিবার থেকেই বিদ্যুতের নতুন দাম কার্যকর হওয়ার কথা। আগামী ৭ অথবা ৮ সেপ্টেম্বর চূড়ান্ত ঘোষণা আসতে পারে। আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর এ নিয়ে ষষ্ঠ বারের মতো বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হলো। সর্বশেষ গত ২৯ মার্চ বিদ্যুতের পাইকারি ও খুচরা দাম প্রতি ইউনিটে যথাক্রমে গড়ে ২৮ পয়সা এবং ৩০ পয়সা করে বাড়ানো হয়। গত ১ মার্চ থেকে এই দাম কার্যকর হয়। গত জুন মাসে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দেয় বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড। ওই প্রস্তাবে পাইকারি দাম ৫০ শতাংশ এবং খুচরা দাম কোম্পানি ভেদে ৫৬ শতাংশ পর্যন্ত বাড়ানোর প্রস্তাব আসে। ১৬ জুলাই ওই প্রস্তাবের ওপর বিইআরসিতে অনুষ্ঠিত হয় গণশুনানি। এরপর ২৬ জুলাই বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর জন্য সংবাদ সম্মেলন ডেকেও তা বাতিল করে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। বেশ কিছুদিন ধরেই অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ভর্তুকি কমানোর জন্য বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর ইঙ্গিত দিয়ে আসছিলেন। এদিকে বিদ্যুৎ বিলের ক্ষেত্রে বর্তমানে যে তিনটি ধাপ তৈরি করা হয়েছে তা ভেঙে সাতটি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন নির্ভর যোগ্য সূত্র। বর্তমান স্লাবে গ্রাহকদের আপত্তির কথা বিবেচনা করে আমরা সাতটি স্লাব তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সে অনুযায়ী বর্তমানে প্রতি ইউনিট পাইকারি বিদ্যুত বিক্রি হচ্ছে ৪ টাকা ২ পয়সায়। আর খুচরা গ্রাহকদের ১০০ ইউনিট পর্যন্ত ব্যবহারের ক্ষেত্রে প্রতি ইউনিটে ৩ টাকা ৫ পয়সা, ১০০ থেকে ৪০০ ইউনিট পর্যন্ত ব্যবহারের ক্ষেত্রে ইউনিট প্রতি ৪ টাকা ২৯ পয়সা এবং ৪০০ ইউনিটের বেশি ব্যবহারের ক্ষেত্রে প্রতি ইউনিটে ৭ টাকা ৮৯ পয়সা হারে দাম দিতে হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।