মোশাররফ-ফেরদৌসকে ৭ দিনের রিমান্ড: পদ্মা সেতু দুর্নীতি

ঢাকা, ২৭ ডিসেম্বর (খবর তরঙ্গ ডটকম)- পদ্মা সেতু প্রকল্পে দুর্নীতির ষড়যন্ত্র মামলার দুই আসামি মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া ও কাজী মো. ফেরদৌসকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৭ দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছে আদালত।দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) উপ পরিচালক মির্জা জাহিদুল আলম বৃহস্পতিবার ওই দুই জনকে ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন।
শুনানি শেষে অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম মো. সহিদুল ইসলাম সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।হাই কোর্ট বুধবার মোশাররফ ও ফেরদৌসের জামিন আবেদন ফিরিয়ে দেয়ার পর রাজধানীর শাহবাগ এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করেন দুদক কর্মকর্তারা।

কানাডার প্রতিষ্ঠান এসএনসি লাভালিনকে পদ্মা সেতুর পরামর্শকের কাজ পাইয়ে দিতে ‘ঘুষ লেনদেনের ষড়যন্ত্রের’ অভিযোগে গত ১৭ ডিসেম্বর বনানী থানায় সাত জনের বিরুদ্ধে এই মামলা দায়ের করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মামলার পর সচিব মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়াকে ওএসডি করা হয় এবং দুর্নীতি দমন কমিশন সাত আসামিকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেয় যাদের মধ্যে সেতু কর্তৃপক্ষের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী(নদী শাসন) কাজী মো. ফেরদৌসও রয়েছেন।

এ মামলার অন্য আসামিরা হলেন- যোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) নির্বাহী প্রকৌশলী রিয়াজ আহমেদ জাবের, ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড প্ল্যানিং কনসালটেন্ট লিমিটেডের উপ ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বাংলাদেশে কানাডীয় পরামর্শক প্রতিষ্ঠান এসএনসি লাভালিনের স্থানীয় প্রতিনিধি মোহাম্মদ মোস্তফা, এসএনসি-লাভালিনের সাবেক পরিচালক মোহাম্মদ ইসমাইল, এই সংস্থার আন্তর্জাতিক প্রকল্প বিভাগের সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট রমেশ শাহ ও সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট কেভিন ওয়ালেস।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।