টেকনাফে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে কোটি টাকার ক্ষয়-ক্ষতি

টেকনাফে ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে ৮টি ভাড়াবাসা, ৩৬খানা টমটম ও একটি ওয়ার্কশপ পুড়ে গিয়েছে। বৃহস্পতিবার ৭ ফেব্র“য়ারী ভোর রাতে টেকনাফ পৌর এলাকায় ছিদ্দিক কলোনিতে ঘটেছে এ ঘটনা। খবর পেয়ে কক্সবাজার থেকে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ঘটনাস্থলে পৌছার আগেই পুড়ে ছাই হয়ে যায় সবকিছু। ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ওয়ার্কশপ থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে প্রত্যদর্শীরা জানিয়েছেন। সরেজমিন ঘটনাস্থলে গিয়ে জানা যায়- রাত দেড়টার দিকে রফিকের  মালিকানাধীন ওয়ার্কশপ থেকে  আগুনের সূত্রপাত হয়। এসময় ৩৬টি টমটম গাড়িতে চার্জ দেওয়া হচ্ছিল। আগুন লেগে দ্রুত সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ে। এসময় বাসা গুলোতে লোকজন ঘুমন্ত অবস্থায় ছিল। কিছু লোক মাহফিল থেকে এসে আগুন দেখে চিৎকার শুরু করলে লোকজন জেগে উঠে। কিন্তু কাছাকাছি পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি না থাকায় আগুন নেভাতে সম হয়নি। আগুনে রফিকের মালিকানাধীন দানুমিয়া ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপ ও ওয়ার্কশপের যাবতীয় মূল্যবান ইঞ্জিনিয়ারিং যন্ত্রপাতি,৩৬টি টমটম, ৩টি কুকুর, ১০টি হাঁস, শতাধিক মুরগি এবং শামসুল আলম, ইসমাইল, আবুল হাশেম, কামাল, রফিক, মোঃ করিম, বাবুল পাল, স্বপন পাল এই ৮টি ভাড়া বাসা ও বাসাসমুহের যাবতীয় মালামাল, স্বর্ণালংকার, নগদ টাকা, কাপড়চোপড়, বই-পুস্তক পুড়ে গিয়েছে। আগুন লাগার পর পরই টেকনাফ থেকে মিডিয়াকর্মীগণ কক্সবাজার ফায়ার ষ্টেশনে খবর দিলে ফায়ারসার্ভিসের গাড়ি টেকনাফ পৌছার আগেই ভস্মিভূত হয়ে যায়। হঠাৎ এই অগ্নিকান্ডে ভাড়াবাসায় বাসিন্দাগণ ও ওয়ার্কশপের মালিক দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।