নারায়ণগঞ্জে মা ও শিশু কন্যাকে হত্যা

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলায় পারিবারিক কলহের জের ধরে মা ও শিশু কন্যাকে হত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বুধবার সকালে পুলিশ ফতুল্লার পাগলা পশ্চিম রসুলপুর এলাকা থেকে দুটি লাশ উদ্ধার করে। নিহতরা হলেন, পটুয়াখালীর চর মুসারী এলাকার আব্দুর রাজ্জাকের মেয়ে ঝর্ণা আক্তার (২০) এবং ঝর্ণার দেড় মাসের শিশু কন্যা সাবিহা। ঘটনার পর থেকেই ঝর্ণার স্বামী ট্রাক সহকারী সাদেকুর রহমান (২৬) পলাতক আছেন। সাদেকুর রংপুর জেলার ডোমার থানার চিকনমারী এলাকার আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে। দেড় বছর আগে ঝর্ণা ও সাদেকুরের বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই তারা ফতুল্লার পাগলা পশ্চিম রসুলপুর এলাকায় জয়নাল হাজীর বাড়িতে ভাড়া থাকতেন।
নিহত ঝর্ণার মা কোহিনুর বেগম সাংবাদিকদের জানান, কিছুদিন আগে সাদেকুর তাদের কাছে ৬০ হাজার টাকা যৌতুক দাবি করেন। কিন্তু তাদের পক্ষে যৌতুকের টাকা দেয়া সম্ভব নয় বলে জানিয়ে দেয়া হয়।
এরপর থেকে ঝর্ণার সঙ্গে সাদেকুরের প্রায়ই ঝগড়া হতো। মঙ্গলবার রাতেও তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। সকালে এলাকার লোকজন ঘরের দরজা খোলা দেখে ভিতরে গিয়ে বিছনায় ঝর্ণার জবাই করা লাশ ও সাবিহার মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয়।
যৌতুকের টাকার জন্যই তার মেয়ে ও নাতিকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন বৃদ্ধা কোহিনুর।
ফতুল্লা মডেল থানার ওসি আকতার হোসেন বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে এই হত্যার ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। লাশ ময়না তদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার পর থেকে সাদেকুর পলাতক আছেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।