তুরাগে পুলিশ-ডাকাত বন্দুকযুদ্ধ, নিহত ৩

রাজধানীর তুরাগের দিয়াবাড়ী এলাকায় গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) সঙ্গে ডযাকাত দলের বন্দুকযুদ্ধে নিহত তিন । এদের তিন জনই ডাকাত দলের সদস্য। এ ঘটনায় অপর ৬ ডাকাতকে আটক করেছে ডিবি পুলিশ। বৃহস্পতিবার ভোর রাত সাড়ে ৪টায় এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত তিনজন হলেন, ট্রান্সফরমার ডাকাতি চক্রের দলনেতা সেলিম (৪২), তার ছোট ভাই জাকির (২৭) ও সাজিদ (৩০)। আটককৃত ছয় ডাকাত হলেন সুরুজ, সুজন, হিরা, হাফিজ, লালমিয়া ও রাজু।

আটককৃতদের ডিবি ‍অফিসে নেওয়া হয়েছে। তারা সবাই ট্রান্সফরমার ডাকাতির ঘটনায় জড়িত বলে ডিবি পুলিশের দাবি।

পুলিশ-ডাকাত গুলি বিনিময়ের পর ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ ২টি বিদেশি পিস্তল, ১টি রিভলবার, ৬রাউন্ড রিভলবারে গুলি এবং ১ রাউন্ড পিস্তলের গুলি উদ্ধার করে। এছাড়া ঘটনাস্থল থেকে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত একটি ট্রাক, কাটার, রামদা ও ছুরি উদ্ধার করা হয়।

মহানগর পুলিশের জনসংযোগ শাখার সহকারী কমিশনার রবিউল ইসলাম বলেন, “ভোররাতে ডিবি ওই এলাকায় অভিযান চালাতে গেলে পুলিশের সঙ্গে ডাকাতদলের গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। এ সময় উভয়পক্ষের গুলিতে তিন ডাকাত নিহত হন। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তাদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সকাল ৭টায় মৃত ঘোষণা করেন।”

গত ৩ ফেব্রুয়ারি মুন্সীগঞ্জের গজারিয়ায় ট্রান্সফরমার ডাকাতির ঘটনায় ডাকাত চক্রকে ধরতে গিয়ে ডিবির এসআই শরিফুল নিহত হন। সে ঘটনায় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় আটক হওয়া ট্রাক ড্রাইভার শিপনকে জিজ্ঞাসাবাদের পর বিভিন্ন সূত্র থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ডিবি বৃহস্পতিবার ভোররাতে এ অভিযান চালায়।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।