আশুগঞ্জ সার কারখানায় উৎপাদন বন্ধ: ত্রুটিগত কারণে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জ সার কারখানায় এ্যামোনিয়া প্রসেস এয়ার কম্প্রেসারে লিকেজের কারণে শনিবার সকাল ১০টা থেকে ইউরিয়া সার কারখানার উৎপাদন বন্ধ হয়ে গেছে।  কারখানাটি চালু করতে এক সপ্তাহ সময় লাগতে পারে বলে জানিয়েছেন কারখানা কর্তৃপক্ষ। কারখানার মহাব্যবস্থাপক প্রসাশন আনোয়ার হোসেন  জানান, এ্যামোনিয়া প্রসেস এয়ার কম্প্রেসারে লিকেজের কারণে শনিবার সকাল থেকে সার কারখানার ইউরিয়া সার উৎপাদন বন্ধ হয়ে গেছে। এ ত্রুটি সারিয়ে কারখানা পুনরায় চালু করতে প্রায় সপ্তাহ খানেক সময় লাগতে পারে। এদিকে, কারখানা এক সপ্তাহ বন্ধ থাকলে দৈনিক আড়াই কোটি টাকা মূল্যের ১৬শ’ মেট্রিক টন উৎপাদন ক্ষমতা হিসাবে প্রায় ১৭ কোটি টাকার মূল্যের প্রায় ১১শ মেট্রিক টন ইউরিয়া সার উৎপাদন ব্যাহত হবে।

চলতি অর্থ বছরে কারখানার উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ২ লক্ষ ২৫ হাজার মেট্রিক টন। তবে চলতি বছরে এ পযর্ন্ত ১ লাখ ৬৬ হাজার ১৬৯ মেট্রিক টন ইউরিয়া সার উৎপাদন হয়েছে। বর্তমানে করাখানায় ৫৩ হাজার ৪শ মেট্রিক টন ইউরিয়া সার মজুদ রয়েছে।

এ ব্যাপারে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সার সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. জালাল উদ্দিন  জানান, গ্যাস সংকটের কারণে কারখানা বন্ধ থাকায় সারের উৎপাদন ব্যাপকভাবে ঘাটতি হয়েছে। গত বছর এ সময়ে সারের মজুদ ছিল প্রায় দেড় লাখ মেট্রিক টন কিন্তু চলতি বছর এ মজুদ ৫৩ হাজার মেট্রিক টন। এজন্য তিনি মনে করেন, কারখানা দীঘদিন বন্ধ থাকলে চলতি মৌসুমে সারের সংকট দেখা দিতে পারে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।