নির্বাচনে সব দলের অংশ চায় ব্রিটেন

বাংলাদেশের বৃহৎ ইসলামিক দল জামায়াতে ইসলামীর রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবিতে সরকার সমর্থকদের আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে সফররত বৃটিশমন্ত্রী সাইয়েদা ওয়ারসি বলেছেন, ‘আদর্শ প্রতিষ্ঠার যুদ্ধে যেকোনো রাজনৈতিক দল নিষিদ্ধের বিপক্ষে তার দেশ। এটা করা কখনও ভালোপন্থা হতে পারে না।’ তবে বাংলাদেশের ভবিষ্যত কি হবে তা জনগণকেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। মঙ্গলবার মন্ত্রণালয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনির সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের বৃটিশমন্ত্রী সাইয়েদা ওয়ারসি এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি আগামী জাতীয় নির্বাচন সম্পর্কে বলেন, ‘নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষতার প্রশ্নে সব দলের অংশগ্রহণকে বৃটেন জরুরি মনে করে। আশা করি, বাংলাদেশে সব দলের অংশগ্রহণে নির্বাচন হবে।’

যেকোনো সমস্যার সমাধান গণতান্ত্রিক পন্থায় হওয়া উচিত উল্লেখ করে ওয়ারসি আরও বলেন, ‘আমি নিজে গণতন্ত্রের অনুসারি। গণতন্ত্রের মাধ্যমে সবকিছুর সমাধানে বিশ্বাস করি।’

তিনি নির্বাচনের জন্য সকল দলকে যথাযথভাবে নিজেদের উপস্থাপনের পক্ষে মত দেন। বলেন, ‘সব সময় জনগণের সিদ্ধান্তের ওপরই একটি দেশের সবকিছু নির্ভর করে।’

এক প্রশ্নের উত্তরে বৃটিশমন্ত্রী বলেন, ‘জাতীয় নির্বাচনে সব দলের অংশগ্রহণ জরুরি। নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সব দলের অংশগ্রহণ প্রয়োজন, যা নির্বাচনকে সকলের কাছে গ্রহণযোগ্য করবে।’

নির্বাচনের ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও বিরোধীদলীয় নেতা বেগম খালেদা জিয়াকে প্রধান ভূমিকা পালন করতে হবে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

ওয়ারসি বলেন, অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে গণতান্ত্রিক পরিপক্কতা প্রকাশ করার সুযোগ বাংলাদেশের সামনে রয়েছে।

এ সময় তিনি বাংলাদেশকে একটি স্থিতিশীল গণতন্ত্রের দেশ বলেও উল্লেখ করেন।

নির্বাচন কিভাবে হবে এটা বাইরের কোনো দেশ নির্ধারণ করে দেবে না উল্লেখ করে বৃটিশ এই মন্ত্রী আরও বলেন, ‘এ ব্যাপারে বাংলাদেশকেই সিদ্ধান্ত নিতে হবে।’

ওয়ারসি শাহবাগ আন্দোলনকে শান্তিপূর্ণ মূল্যায়ন করেন। বলেন, ‘জনগণের প্রতিবাদ করার অধিকার রয়েছে। কিন্তু সে প্রতিবাদ হতে হবে অহিংস। শাহবাগ বিক্ষোভ সেদিকেই যাচ্ছে।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনির সঙ্গে বৈঠকের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমরা শাহবাগ বিক্ষোভ, মানবতাবিরোধী অপরাধ, আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল, নির্বাচন প্রস্তুতি, বাণিজ্য, মানবাধিকার এবং রোহিঙ্গা বিষয়ে আলোচনা করেছি।’

সূত্র: আরটিএনএন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।