ঝিনাইদহের শৈলকুপায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১ ॥ বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ শিার্থীসহ ১১ জন আহত

ঝিনাইদহের শৈলকুপায় সড়ক দুর্ঘটনায় মাইক্রোবাস চালক হানিফ (৩৪) নিহত হয়েছে এবং খুলনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০ শিার্থীসহ ১১ জন আহত হয়েছে। তারা সবাই ওই মাইক্রোবাসের যাত্রী। ঘটনাটি ঘটেছে আজ ভোর সাড়ে ৩ টার দিকে ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া সড়কের বড়দা মাদ্রাসার নিকট। আহতদেরকে প্রথমে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল ও পরে খুলনা এবং রাজশাহীতে রেফার্ড করা হয়েছে। খুলনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আহত ছাত্র এসএম শরিফুল ইসলাম জানান, তাদের সহপাঠি অনুশ্রী দাসের পিতা নিতাই চন্দ্র দাস রাজশাহী শহরের নিজ বাসায় অস্বুস্থ জনিত কারনে মারা যায়। এ খবর পেয়ে অনুশ্রী সহ মাইক্রোবাস যোগে তারা ১০ বন্ধু রাজশাহী যাচ্ছিল। আজ ভোর সাড়ে ৩ টার দিকে ঝিনাইদহ-কুষ্টিয়া সড়কের বড়দা মাদ্রাসার নিকট একটি গতিরোধকের কাছে এসে চালক নিয়ন্ত্রন হারায়।

এ সময় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি বালি বোঝায় ট্রাকের সাথে মাইক্রোবাসটি ধাক্কা খেয়ে ছিটকে পড়ে। এতে মাইক্রোবাসের চালক সহ ১২ জন যাত্রী সবাই আহত হয়।  তাদেরকে শৈলকুপা দমকল বাহিনী উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। কর্তব্যরত ডাক্তার মাইক্রো চালক মোঃ হানিফ কে মৃত বলে ঘোষনা করে। অন্য আহতদেরকে খুলনা ও রাজশাহীতে রেফার্ড করা হয়েছে।

আহত শিার্থীরা হল, শর্মী, প্রিয়া, সবুজ, এসএম শরিফুল ইসলাস, অনুশ্রী, রিয়াদ, মিলন সাহা,লিপা, পিনু, আকিল ও মাইক্রোবাসের হেলপার আব্দুল লতিফ।

নিহত মাইক্রো চালক মো হানিফ খুলনার লবনচোরা এলাকার হাফিজ উদ্দিনের ছেলে।

শৈলকুপা থানার ওসি রেজাউল ইসলাম জানান, দ্রুত গতিতে আসা মাইক্রোবাসটির চালক বড়দা মাদ্রাসার নিকট সড়কের গতিরোধকটি বুঝতে না পারায় নিয়ন্ত্রন হরিয়ে ট্রাকের সাথে ধাক্কা লাগায় এ  ঘটনা ঘটে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।