ডাকাত সন্দেহে পুলিশের গাড়ীতে আগুন জনতার

আসামি ধরতে গিয়ে ডাকাত সন্দেহে পুলিশের এএসপি সার্কেলসহ পাঁচ পুলিশকে অবরুদ্ধ করে রাখে গ্রামবাসী নোয়াখালীর সোনাইমুড়ীতে। উত্তেজিত জনতা পুলিশের গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ বেশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে ২০ গ্রামবাসীকে আটক করেছে পুলিশ। এলাকাবাসী জানান, রাত পৌনে ১টার দিকে সোনাইমুড়ী উপজেলার মধ্য অম্বরনগর গ্রামের গফুর মাস্টারের বাড়িতে স্থানীয় ব্যবসায়ী ইকবালের বসতঘরে গিয়ে নিজেদের পুলিশ পরিচয় দিয়ে ঘরের দরজা খুলতে বলে। এতে ঘরের লোকজন ডাকাত বলে সন্দেহ করে এবং চিৎকার করতে থাকে। পাশের মসজিদ কয়েকটি মসজিদ থেকে মাইকে ঘোষণা দেয়া হয় গ্রামে ডাকাত পড়েছে। চারদিক থেকে গ্রামবাসী পুলিশ পরিচায়দানকারী সন্দেহভাজন পাঁচ পুলিশকে অবরুদ্ধ করে। এ সময় উত্তেজিত গ্রামবাসী পুলিশের একটি গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয়।

বেগমগঞ্জ সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার এএসপি মাহবুব আলম জানান, তিনি রাত পৌনে ১টার দিকে মধ্য অম্বরনগর গ্রামে গফুর মাস্টারের বাড়িতে ইকবাল নামে এক আসামিকে গ্রেফতার করতে গেলে পুলিশ পরিচয় দেয়ার পরও ডাকাত সন্দেহে এলাকাবাসী তাদের ঘিরে ফেলে অবরুদ্ধ করে  রাখে। এ সময় পরিস্থিতি নিয়স্ত্রণে আনতে পুলিশ কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে। পরে পাশ্ববর্তী বেগমগঞ্জ ও জেলা সদর থেকে দুই প্লাটুন অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং অবরুদ্ধ পুলিশদের উদ্ধার করে।
স্থানীয় এলাকাবাসী পুলিশের পিকআপ ভ্যানে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে এ পর্যন্ত ২০ গ্রামবাসীকে আটক করেছে পুলিশ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।