মসজিদগুলোতে সরকারের রাজনৈতিক নিয়ন্ত্রণ ও বিধিনিষেধ আরোপের তীব্র সমালোচনা: মির্জা ফখরুল

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বায়তুল মোকাররমসহ দেশের মসজিদগুলোতে সরকারের রাজনৈতিক নিয়ন্ত্রণ ও বিধিনিষেধ আরোপের তীব্র সমালোচনা করেছেন। শুক্রবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা গণপরিষদ আয়োজিত ‘আওয়ামী দুঃশাসন ও বিপন্ন গণতন্ত্র’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় তিনি এ সমালোচনা করেন। ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালককে উদ্দেশ্য করে ফখরুল বলেন, ‘আপনি রাজনৈতিক হাতিয়ার হতে চান বলেই শুক্রবার বায়তুল মোকাররম মসজিদের উত্তর গেইট বন্ধ করে দেওয়ার কথা বলেছেন।’

প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার বিকেলে ইসলামিক ফাউন্ডেশন মিলানায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনে সংস্থাটির মহাপরিচালক শামীম মোহাম্মদ আফজাল বলেছেন, ‘বায়তুল মোকাররম কোনো রাজনৈতিক দলের স্বার্থে ব্যবহার করতে দেওয়া হবে না। সেই সিদ্ধান্ত মোতাবেক প্রতি শুক্রবার মসজিদের উত্তর গেইট বন্ধ থাকবে।’

জনগণকে জিম্মি করে সরকার ক্ষমতা ধরে রাখার ষড়যন্ত্র করছে অভিযোগ করে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, সরকার ভিন্নমতকে সহ্য করতে পারে না বলেই গুলি করে মানুষ হত্যা করছে।
প্রধানমন্ত্রীকে সর্তক করে দিয়ে বলেন, ‘আগুন নিয়ে খেলবেন না। বাংলাদেশকে সংঘাতের দিকে ঠেলে দিবেন না; এতে পরিণতি ভয়াবহ হবে।’

ফখরুল বলেন, ‘পথভ্রষ্ট কিছু ব্লগার আমাদের প্রিয় ধর্ম ইসলাম ও মোহাম্মদ (সা.) কে কটূক্তি করেছে, যা সারাবিশ্বের ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের মনে আঘাত দিয়েছে।’

তিনি বলেন, ’৭৫ এর বাকশালী প্রেতাত্মা এ সরকারের ওপর আবার ভর করেছে। ধীরে ধীরে তাদের সেই ফ্যাসিস্ট মনোভাব প্রকাশ হতে শুরু করেছে। ওই সময় রক্ষীবাহিনী যেভাবে মানুষ হত্যা করেছিল, এখন পুলিশও তাই করছে।

সংগঠনের সভাপতি ইশতিয়াক আজিজ উলফাতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- কল্যাণ পার্টির সভাপতি মেজর জে. (অব.) মুহাম্মদ ইব্রাহিম বীরপ্রতীক, বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, অর্থবিষয়ক সম্পাদক আবদুস সালাম, নির্বাহী কমিটির সদস্য ইসমাঈল হোসেন বেঙ্গল প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।