সাহস থাকলে দেশে এসে আদালতে লড়াই করুক: তারেককে কামরুল

বিএনপির সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমানের পাঠানো উকিল নোটিস নিয়ে আইন প্রতিমন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বলেছেন, ‘উকিল নোটিস কেন? সাহস থাকলে দেশে এসে আদালতে লড়াই করুক।’ তিনি বুধবার সকালে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে হরতালবিরোধী অবস্থানে অংশ নিয়ে এই আহবান জানান।
কামরুল ইসলাম বলেন, ‘এখন পর্যন্ত আমার কাছে কোনো নোটিস আসেনি। পত্রিকা টেলিভিশনের মাধ্যমে আমি এ ব্যাপারে জেনেছি। তবে নোটিস দেয়াটা একটা স্ট্যান্ডবাজি। এতে কোনো লাভ হবে না।’ তিনি বলেন, ‘আমি তারেক রহমানের ব্যাপারে যা বলেছি, সঠিক কথাই বলেছি। তার বিরুদ্ধে অতিরঞ্জিত কোনো কথা বলিনি। তিনি পলাতক আসামি। আমি যে অভিযোগ করেছি, তা মিথ্যা হলে তিনি আদালতে যাক। আদালতের রায়কে চ্যালেঞ্জ করুক।’

তারেক রহমানকে দেশে এসে ধরা দিতে হবে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘স্বাভাবিক বা অস্বাভাবিক যেভাবেই হোক তাকে ধরা পড়েতেই হবে।’

হরতাল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘হরতাল ডেকে বিএনপি নেতাদের গর্তে লুকানো গতানুগতিক ব্যাপার। এ ধরনের হরতাল দিয়ে সমাধান হবে না। আদালতের মাধ্যমে এ ব্যাপারে সমাধান করতে হবে। বিএনপি যদি মনে করে তারেক নির্দোষ, তাহলে তাকে আত্মসমর্পণ করতে হবে।’

কামরুল ইসলাম বলেন, তারেকের বিচার হচ্ছে। বিচার এখন শেষ পর্যায়ে। যদি সে দেশে না আসে, তাহলে মামলা তার নিজস্ব গতিতে চলবে। পরিণতি কি হয় তা ভবিষ্যতে দেখা যাবে।

তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার না হলে ভবিষ্যতে আরো হরতাল দেয়া হবে বিএনপি নেতাদের এমন হুঁশিয়ারির জবাবে তিনি বলেন, ‘এ সমস্ত বাগাড়ম্বর করে লাভ হবে না। তারেক রহমানের জন্য হরতাল দিয়ে লাভ হবে না। তাকে আইনের কাছে ধরা দিতেই হবে।’

এ সময় মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেন, ‘বিএনপি আরো হরতাল দিক, আমি চাই। আওয়ামী লীগ এমন দল যার বিরুদ্ধে হরতাল দিয়ে কোনো লাভ নেই। আগামী রমজান মাস পর্যন্ত হয়তো দু-একটি হরতাল তারা দিবে। তবে এতে বিএনপির ভোট মাইনাস হবে আর ১৪ দলের প্লাস হবে।’

কার্যালয়ের সামনে হরতালবিরোধী অবস্থানে আরো উপস্থিত ছিলেন- মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এমএ আজিজ, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, মুকুল চৌধুরী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাজি সেলিম প্রমুখ।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।