সোমবার, অক্টোবর 18, 2021
সোমবার, অক্টোবর 18, 2021
সোমবার, অক্টোবর 18, 2021
spot_img
Homeজেলামাওয়া এবং পাটুরিয়া নৌ-রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ হওয়ায় দীর্ঘ যানজট

মাওয়া এবং পাটুরিয়া নৌ-রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ হওয়ায় দীর্ঘ যানজট

উপকূলে নিম্নচাপের প্রভাবে সারা দেশে গত তিনদিন ধরে বৃষ্টি হচ্ছে। এর প্রভাব পড়েছে জনজীবনে। বৈরী আবহাওয়া কারণে পদ্মায় তীব্র স্রোত বইছে।

এতে মাওয়া-কাওড়াকান্দি এবং পাটুরিয়া-দৌলতিয়া নৌ-রুটে যান চলাচলে বিঘ্নের সৃষ্টি হয়েছে। উভয় নৌ-রুটের দুদিকে অসংখ্য যানবাহন আটকে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

আমাদের মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, পদ্মা উত্তাল থাকায় মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌ-রুটে শুক্রবার ফেরিসহ সব ধরনের নৌ-যান চলাচল বন্ধ রয়েছে। দুটি রো রো ফেরি দিয়ে নৌ-রুট সচল রাখার চেষ্টা থাকলেও তা কাজে আসেনি।

বৃহস্পতিবার রাত নয়টার দিকে মাওয়াস্থ ৩ নম্বর ঘাটে রো রো পল্টুনের ছিদ্র দিয়ে পানি প্রবেশ করে পল্টুন তলিয়ে যায়। এতে মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌ-রুটে ফেরি পারাপার সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে গেছে।

বিআইডব্লিউটিসির মাওয়া প্রান্তের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) সিরাজুল ইসলাম আরটিএনএন- কে বলেন, বৃহস্পতিবার রাত নয়টার দিকে মুন্সীগঞ্জ সদর ও শ্রীনগর উপজেলার ফায়ার সার্ভিসের দুটি ইউনিট ফেরির পল্টুনের পানি নিষ্কাশনকাজ শুরু করেছে। তবে শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত পল্টুনটি উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি।

এতে দক্ষিণবঙ্গের ২৩ জেলার সঙ্গে এই নৌ-রুটে রাজধানীর সড়ক পথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে।

এদিকে, নিম্নচাপের প্রভাবে মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌ-রুটে মাঝ পদ্মায় চরে আটকে থাকা একটি ডাম্প ফেরি বৃহস্পতিবার রাতে ২১ ঘণ্টা পর উদ্ধার করা হয়েছে। তবে অপর একটি ফেরি শুক্রবার বিকেল পর্যন্ত পদ্মার চরে আটকে রয়েছে। তবে বিআইডব্লিউটিসি চরে আটকে থাকা ফেরি দুটির ৪ শতাধিক যাত্রীকে রাতেই উদ্ধার করে গন্তব্যে পৌঁছে দিয়েছে বলে জানা গেছে।

বিআইডব্লিউটিসির উপ-মহাব্যবস্থাপক আশিকুজ্জামান  বলেন, বুধবার রাত থেকে বৈরী আবহাওয়া শুরু হয়। এতে মাওয়া-কাওড়াকান্দি নৌ-রুটে ফেরি চলাচল বিঘ্নিত হয়। দুর্ঘটনা এড়াতে বন্ধ রাখা ছোট বড় সকল ধরনের নৌ-যান।

এই রুটে ফেরিসহ সকল ধরনের নৌ-যান চলাচল বন্ধ থাকায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন দূরপাল্লার যাত্রী ও পণ্যবাহী ট্রাকের চালক ও মালিকরা। দীর্ঘ যানজটে নাকাল অবস্থা বিরাজ করছে মাওয়া ঘাট সংলগ্ন এলাকা থেকে শুরু করে ঢাকা-মাওয়া মহাসড়কের সিরাজদিখানের নিমতলা পর্যন্ত।

মানিকগঞ্জ প্রতিনিধি জানান, ঝড়ো বাতাস, বৃষ্টি ও নদীতে ঢেউয়ের কারণে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌ-রুটে ফেরি চলাচল বিঘ্নিত হওয়ায় বৃহস্পতিবার রাতে দুদফায় প্রায় নয় ঘণ্টা ফেরি চলাচল বন্ধ ছিল। শুক্রবারও সারা দিন ঝড়ো বাতাস ও বৃষ্টি অব্যাহত থাকায় নদীতে ঢেউয়ের সৃষ্টি হয়ে একই অবস্থা বিরাজ করছে।

দীর্ঘ সময় ধরে ফেরি পারে বিঘ্ন হওয়ায় উভয় পাড়ের ঘাট এলাকায় সহস্রাধিক যানবাহন আটকে পড়েছে। এতে হাজারো যাত্রীসহ চালক, হেলপার ও ঘাট এলাকায় কর্মরত বিভিন্ন সংস্থার কর্মকর্তা-কর্মচারীরা দুর্ভোগে পড়েছেন।

বিআইডব্লিউটিসির আরিচা কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মো. মহিউদ্দিন রাসেল জানান, বৃহস্পতিবার দুপুর থেকে ঝড়ো বাতাস ও সঙ্গে বৃষ্টি শুরু হয়েছে। এতে নদীতে উচু ঢেউয়ের সৃষ্টি হলে পন্টুন থেকে ফেরিতে যানবাহন উঠাতে বিলম্বিত হচ্ছে।

তিনি জানান, নৌ-পথে ফেরি চলাচলে স্বাভাবিকের চেয়ে দ্বিগুণ সময় লাগছে। বাতাসের তীব্রতা বেড়ে প্রবল ঢেউয়ের সৃষ্টি হওয়ায় বৃহস্পতিবার রাত আটটা থেকে চার ঘণ্টা ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়। এরপর দুটি ফেরি চলাচল করার পর আবারো রাত একটা থেকে ভোর ছয়টা পর্যন্ত ফেরি চলাচল বন্ধ রাখা হয়।

রাসেল বলেন, শুক্রবার সকালে বাতাসের তীব্রতা কমে এলে পুনরায় ফেরি চলাচল শুরু হলেও সারাদিন ঝড়ো বাতাসের সঙ্গে বৃষ্টি অব্যাহত রয়েছে। এ কারণে নদীতে ঢেউ জেগে ওঠায় ফেরি চলাচল বিঘ্নিত হচ্ছে। উভয় পাড়ের ঘাট এলাকায় ওই সংখ্যক যানবাহন আটকে পড়েছে। এগুলোর মধ্যে রাতে আটকে পড়া যানবাহনও রয়েছে।

এই নৌ-রুটে রো রো শাহ আলী, শাহ পরাণ, শাহ জালাল, খান জাহান আলী, মওখদুম, এনায়েতপুরী, আমানত শাহ, ভাষা শহীদ বরকত এবং কে-টাইপ কাবেরী ও কুমারী ফেরি যানবাহন পারাপারে নিয়োজিত রয়েছে।

তবে, যেকোনো সময় বাতাসের তীব্রতা বেড়ে নদীতে প্রবল ঢেউয়ের সৃষ্টি হয়ে আবারো ফেরি চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা করছেন সংম্লিষ্টরা।

এছাড়া, ঝড়ো বাতাসে এ নৌ-পথে অল্প যাত্রী বোঝাই করে লঞ্চ চলাচল করছে। বাতাসের তীব্রতা বেড়ে যাওয়ায় দফায় দফায় লঞ্চ চলাচল বন্ধ রাখা হচ্ছে বলে লঞ্চ কাউন্টারের সুপারভাইজাররা জানিয়েছেন।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -spot_img

Most Popular

Recent Comments