তত্বাবধায়ক ইস্যুতে প্রয়োজনে নতুন অধিবেশন: স্পিকার

তত্ত্বাবধায়ক বা অন্য কোনো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আলোচনার জন্য দুই দল একমত হলে প্রয়োজনে নতুন অধিবেশন ডাকা হবে- এমনটা জানিয়েছেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী।

রোববার বিকেলে সংসদ ভবনে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ তথ্য জানান।

বাজেট অধিবেশনে সাধারণত অন্য কোনো গুরুত্বপূর্ণ বিষয় নিয়ে আলোচনা হয় না, কিন্তু এ অধিবেশনে বাজেট ছাড়া অন্য কোনো বিষয়ে আলোচনা হবে কি না- এমন প্রসঙ্গে স্পিকার বলেন, “গুরুত্বপূর্ণ বিষয় থাকলে বাজেট পাসের পর আলোচনার সুযোগ থাকবে। প্রয়োজনে অধিবেশনের সময় বাড়ানো হবে। তত্ত্বাবধায়ক বা অন্য কোনো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে আলোচনার জন্য দুই দল একমত হলে প্রয়োজনে নতুন অধিবেশন ডাকা হবে।”

তিনি বলেন, “সংসদে বিরোধী দলকে কথা বলার সব সুযোগ দেয়া হবে।” একইসঙ্গে বিরোধী দল অধিবেশনের পুরো সময় সংসদে থাকবে বলেও তিনি আশা প্রকাশ করেন।

তিনি বলেন, “বিরোধী দল সংসদে আসবে আর কথা বলার সুযোগ পাবে না, এটা হতে পারে না। ক্ষমতাসীন এবং বিরোধী দল সমান গুরুত্ব পাবে। তবে একটা কথা সবাইকে মনে রাখতে হবে, অধিবেশন সুন্দর ও সুষ্ঠুভাবে পরিচালনার জন্য স্পিকারের অবশ্যই কিছু ভূমিকা রাখতে হয়, সময় বিবেচনা করতে হয়। এটাকে বৈরী আচরণ মনে করা উচিত হবে না।”

সংসদের ১২তম অধিবেশনে বিরোধীদলীয় নেতা ও সংসদ নেতা দীর্ঘক্ষণ কথা বলেছিলেন- সাংবাদিকরা এ প্রসঙ্গ নিয়ে আসলে ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, “নিশ্চয় তারা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ের ওপর কথা বলেছেন, এটা হতে পারে।”

বিরোধী দলের মুলতুবি প্রস্তাব বেশিরভাগ সময় নাকচ করা হয়- এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “সংসদে অনেক পদ্ধতি আছে, কোনটি গ্রহণ করা হবে আর কোনটি করা হবে না তা একান্ত স্পিকারের ব্যক্তিগত বিবেচনার বিষয়। গুরুত্ব থাকলে অবশ্যই গ্রহণ করা হবে।” সূত্র: বাসস।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।