ফেনীতে পাঁচ রাষ্ট্রয়াত্ত ব্যাংকের খেলাপি কৃষি ঋনের বকেয়া ৫ কোটি সাড়ে ৬ লাখ টাকা: সার্টিফিকেট মামলা ২৮৭০টি

ফেনীতে পাঁচটি রাষ্ট্রয়াত্ব ব্যাংকের খেলাপি কৃষি ঋনের জন্য অর্থঋন আদালতে ২৮৭০টি সার্টিফিকেট মামলা দায়ের করা হয়েছে । মামলা গুলো বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে। এসব খেলাপি ঋন গ্রহিতার নিকট পাঁচ ব্যাংকের মোট পাঁচ কোটি ছয় লাখ ৪৩ হাজার টাকা পাওনা রয়েছে। পাঁচটি রাষ্ট্রয়াত্ব ব্যাংক হচ্ছে- সোনালী ব্যাংক লিঃ, অগ্রনী ব্যাংক লিঃ, জনতা ব্যাংক লিঃ, রুপালী ব্যাংক লিঃ ও বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক। সম্প্রতি (গত ২৪ এপ্রিল)  সর্বশেষ জেলা কৃষি ঋন কমিটির সভায় এ তথ্য উঠে আসে।
সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা যায়, গত ২৪ এপ্রিল ২০১৩ সাল পর্যন্ত ফেনী জেলায় ২৮৭০টি সার্টিফিকেট মামলা আদালতে বিচারধীন রয়েছে। এগুলোর মধ্যে শুধু বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংকের অনিস্পন্ন সার্টিফিকেট মামলা রয়েছে দুই হাজার ৩৯টি, যার মধ্যে খেলাপি ঋনের পরিমান চার কোটি ৩৩ লাখ ৯৭ হাজার টাকা। তন্মধ্যে জেলার সবচেয়ে ছোট পরশুরাম উপজেলা দুটি শাখায় (পরশুরাম বাজার শাখা ও বক্সমাহমুদ শাখা) খেলাপি ঋনের জন্য ৬১৭টি সার্টিফিকেট মামলা হয়েছে। এ সব মামলায় সুদ আসলে ব্যাংকের পাওনা এক কোটি ৬২ লাখ ৫০ হাজার টাকা। ফুলগাজী উপজেলায় খেলাপি ঋনের মামলার সংখ্যা ৪০৬টি, পাওনা টাকা ৭৯ লাখ ৯২ হাজার টাকা। ছাগলনাইয়া উপজেলায় খেলাপি ঋনের জন্য মামলা ৩৭০টি, পাওনা টাকার পরিমান ৬০ লাখ ৪৯ হাজার, ফেনী সদর উপজেলায় খেলাপি ঋনের জন্য মামলা ২৪৪টি, পাওনা টাকার পরিমান ৪৮ লাখ ৫০ হাজার টাকা।  দাগনভুঁঞা উপজেলায় খেলাপি ঋনের মামলা ২২৯টি, পাওনা টাকার পরিমান ৩৭ লাখ পাঁচ হাজার টাকা ও সোনাগাজী উপজেলায় খেলাপি ঋনের মামলা রয়েছে ১৩৮টি, পাওনা টাকার পরিমান ২৮ লাখ ৪২ হাজার টাকা।
জনতা ব্যাংক লিঃ ২৭ লাখ ৭২ হাজার টাকা খেলাপি ঋনের জন্য সার্টিফিকেট মামলা দায়ের করেছে ৪২১টি। যার মধ্যে শুধু সোনাগাজী উপজেলায় ৩৫০টি খেলাপি ঋনের জন্য মামলা করা হয়েছে। সুদ আসলে ব্যাংকের পাওনা ২০ লাখ ৫৮ হাজার টাকা। এছাড়া ফেনী উপজেলায় ১৩টি, ফুলগাজীতে ৩১টি, ছাগলনাইয়ায় ২৩টি ও দাগনভুঁঞায় চারটি মামলা রয়েছে।
অগ্রনী ব্যাংক লিঃ ১৮ লাখ ২০ হাজার টাকার খেলাপি ঋনের জন্য সার্টিফিকেট মামলা করেছে ২৮১টি। তন্মধ্যে ফেনী সদর উপজেলায় নয় লাখ ৪১ হাজার টাকা খেলাপি ঋনের জন্য সার্টিফিকেট মামলা করা হয়েছে ১৪৪টি। ছাগলনাইয়া উপজেলায় তিন লাখ ৫৪ হাজার টাকার জন্য ৬২টি সার্টিফিকেট মামলা, সোনাগাজীতে দুই লাখ ৯৬ হাজার টাকার জন্য ৩৮টি সার্টিফিকেট মামলা, দাগনভূঁঞায় উপজেলায় দুই লাখ ২৯ হাজার টাকার জন্য ৩৭টি সার্টিফিকেট মামলা দায়ের করা হয়েছে।
সোনালী ব্যাংক লিঃ ১৩ লাখ সাত হাজার টাকার খেলাপি ঋনের জন্য মামলা দায়ের করেছে ৬১টি। তন্মধ্যে সোনাগাজী ১১ লাখ ২৪ হাজার টাকা খেলাপি ঋনের জন্য ৪৯টি সার্টিফিকেট মামলা, ফেনী উপজেলায় চারটি মামলা, পরশুরামে ৩টি মামলা ও ছাগলনাইয়া উপজেলায় পাঁচটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।
রূপালী ব্যাংক লিঃ ১৬ লাখ ৫৭ হাজার টাকা খেলাপি ঋনের জন্য ৬৮টি সার্টিফিকেট মামলা করেছে। তন্মধ্যে ফেনী সদর উপজেলায় ১০ লাখ ২০ হাজার টাকার জন্য ৫০টি মামলা ও সোনাগাজী উপজেলায় ছয় লাখ ৩৭ হাজার টাকার জন্য ১৮টি সার্টিফিকেট মামলা দায়ের করেছে।
বাংলাদেশ কৃষি ব্যাংক পরশুরাম বাজার শাখার ব্যবস্থাপক কাজী মো. মোস্তফা জানান, পরশুরাম শাখার খেলাপি কৃষি ঋনের জন্য ৩৫৩টি সার্টিফিকেট মামলার করা হয়েছে। অনেক অসচ্ছল কৃষক  ১৯৯৭-৯৮ সালে এসব কৃষি ঋন নিয়েছিল। কিন্তু আর পরিশোধ করেনি। ঋনের টাকা পরিশোধের জন্য ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তাদের কাছে বারবার নানা ভাবে ধর্না দিয়েও টাকা আদায় করতে না পেরে অবশেষে বাধ্য হয়ে সার্টিফিকেট মামলা করতে হয়েছে।

সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।