সুনির্দিষ্ট এজেন্ডা ভিত্তিক সংলাপের মাধ্যমে সমঝতায় পৌঁছুন —– সরকারকে কাজী জাফর

সারা দেশে আমরা একটা গৃহযুদ্ধের আবহাওয়ায় বাস করছি। খুন, গুম, সন্ত্রাস, সহিংসতা আজকে বাংলাদেশের রাজনীতির বৈশিষ্ট্যে পরিনত হয়েছে। শুক্রবার কুমিল্লা শিল্পকলা একাডেমি মাঠ প্রাঙ্গনে আয়োজিত বৃহত্তর কুমিল্লা জাতীয় পার্টিকে সুসংগঠিত করার লক্ষ্যে মত বিনিময় সভায় এসব কথা বলেন সাবেক প্রধান মন্ত্রী ও জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফর আহম্মদ।

তিনি আরো বলেন বাংলাদেশে এখন যা চলছে তা হল নাতসিবাদ ও ফ্যাসিবাদের সমিকরণ। আমি সরকারকে অনুরোধ করব এখনও সময় আছে, আপনারা মাথা ঠান্ডা করুন। স্থির ভাবে ভাবুন। একথা মনে রাখবেন, এই সরকার শেষ সরকার নয়। পৃথিবীতে কোন শৈর শাসক ক্ষমতার মসনদকে চিরস্থায়ী করতে পারে নাই সুতরাং আপনারা ও পারবেন না। এখন ও সময় আছে বিরোধী দলের সাথে সংলাপ শুরু করুন। সুনির্দিষ্ট এজেন্ডা ভিত্তিক সংলাপের মাধ্যমে সমঝতায় পৌঁছুন। ইতিমধ্যেই গৃহযুদ্ধে বহু রক্ত ঝরেছে, বহু আদম সন্তানই এই সুন্দর পৃথিবী ছেড়ে চলে গেছে। কে কোন দল করে সেটা বড় কথা নয়। বড় কথা হচ্ছে সবাই বাংলাদেশের নাগরিক।

তিনি বর্তমান রাজনৈতিক ও নির্বাচন সংক্রান্ত অনিশ্চয়তা নিয়ে বলেন আর রক্ত ঝরাবেন না। আসুন আমরা সবাই মিলে বর্তমান রাজনৈতিক ও নির্বাচন সংক্রান্ত অনিশ্চয়তা দুর করে সবার অংশগ্রহনের ভিত্তিতে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ভাবে গ্রহন যোগ্য একটি নির্বাচনের ব্যাবস্থা করি। আমি কঠোর ভাবে হুঁশিয়ারি উচ্ছারন করে বলতে চাই, যদি আমরা তা করতে ব্যার্থ হই একদিন সকল রাজনৈতিক দলগুলোকে বিশেষ করে বর্তমান শাসক দলকে কাঠগড়ায় দাড়িয়ে জবাবদিহি করতে হবে।

বর্তমান ২০১৩-২০১৪ অর্থবছরের বাজেট প্রসঙ্গে কাজী জাফর আহম্মদ বলেন, এটা হল কল্পনা বিলাশী, অসম্ভব, মানুষের সাথে পরোচনা মুলক একটা বাজেট। আমাদের সম্পদ যা নেই, নির্বাচনী বৈঠা পার হওয়ার জন্য সে রকম একটা বাজেট পেশ করা হয়েছে। আমরা মনে করি আমাদের এই সীমিত সম্পদ দিয়ে এই বাজেট কখনই বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে না।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সাবেক মন্ত্রী ও জাতীয় পার্টির মহাসচিব এ বি এম রুহুল আমিন হাওলাদার বলেন ঃ আমরা অনেক চড়াই উত্রাই পার করে এই পর্যন্ত এসেছি। আমরা মহাজোট গঠন করেও গত সাড়ে চার বছর আমাদের দলীয় কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি এবং আমাদের দলের চেয়ারম্যান পল্লীবন্ধু হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদ বলেছেন আমরা আগামীতে একক ভাবে নির্বাচন করব। আমরা এই দেশের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করে মানুষের মতামত নিয়ে সরকার গঠন করে এদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করব।

তিনি আরো বলেন, পল্লীবন্ধু হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদ ওনার ৯ বছর শাসন আমলে যে উন্নয়নের চাকা গুরিয়ে ছিলেন সে চাকা গত ২২ বছর ভালো ভাবে গুরেনি। আমি কোন সরকারকেই ছোট করে দেখিনা তবে দুটি সরকারই জনগনের আশা পুরনে ব্যার্থ হয়েছে। আগামীতে আপনাদের নেতৃত্বে জাতীয় পার্টি ও আগামী নির্বাচন পরিচালিত হবে। আমরা আশা করি অল্প কিছু দিনের মধ্যেই পল্লীবন্ধু হুসাইন মোহাম্মদ এরশাদ জাতীয় কাউন্সিল করে সকল আসনে প্রার্থীর মনোনয়ন ঘোষনা করবেন ও নির্বাচনী দিক নির্দেশনা প্রদান করবেন।

জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান ও কুমিল্লা দক্ষিন জেলা কমিটির আহবায়ক এয়ার আহমেদ সেলিম এর সভাপতিত্বে মত বিনিময় সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন ঃ জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য অধ্যাপক দেলোয়ার হোসেন খান, জাহাঙ্গীর মোহাম¥দ আদেল, এস এম এম আলম, মীর আব্দুর রহমান আসুদ, ভাইস চেয়ারম্যান ডাঃ শহিদুল ইসলাম, অধ্যাপক নুরুল ইসলাম মিলন, এডভোকেট জিয়াউল হক মৃধা এম পি, যুগ্ম মহাসচিব রেজাউল ইসলাম ভুঁইয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান হোসেন মিয়া, যুগ্ম সাংগঠনিক সম্পাদক মোবারক হোসেন দুলু, কেন্দ্রীয় নির্বাহী সদস্য কাজী মামুনুর রশিদ, মোঃ জামাল রানা, শাহাদাত কবির চৌধুরি এবং সেলিম মাষ্টার।

উল্লেখ্য উক্ত মতবিনিময় সভায় কমিল্লা, চাঁদপর, নোয়াখালী ও বাহ্মনবাড়িয়া, জেলার ইউনিয়ন, থানা, উপজেলা ও জেলার প্রায় দুই হাজার নেতা কর্মী অংশগ্রহন করেন।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।