বগুড়ায় শিবিরের মিছিলে পুলিশের গুলি : আহত ১৩

বগুড়ায় জামায়াত শিবিরের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ, গুলি, ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনার পর পুলিশ ১ ৬জন জামায়াত শিবিরের নেতাকমীকে গ্রেফতার করেছে। সংঘর্ষে শিবিরের ১০জন ও ৫জন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। তারা সবাই প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।
পুলিশ জানায়, সোমবারের হরতালের সমর্থনে রোববার বিকেল সাড়ে ৬টায় শহরের টিটু মিলনায়তনের সামনে থেকে জামায়াত-শিবির একটি মিছিল বের করে। মিছিলটি সূত্রাপুর এলাকায় রূপকথা হাউজিং অতিক্রম করার পর পুলিশী বাধার মুখে পড়ে। জামায়াত-শিবির কর্মিদের ছত্রভঙ্গ করতে পুলিশ রাবার বুলেট নিক্ষেপ করলে সংঘর্ষ শুরু হয়। পুলিশের রাবার বুলেটের জবাবে শিবির কর্মিরা ২০-২৫ টি ককটেল নিক্ষেপ করে। এসময় পুরো এলাকা রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার একপর্যায়ে জামায়াত-শিবির কর্মিরা পিছু হটে বাসাবাড়ীতে আশ্রয় নেয়। তখন পুলিশ অভিযান চালিয়ে জামায়াতের শহর শাখার সহকারি সেক্রেটারি আব্দুল হাকিমসহ ১৬ জামায়াত-শিবির কর্মিকে গ্রেফতার করে। শহর শিবিরের প্রচার সম্পাদক মিজানুর রহমান জানান, শান্তিপূর্ন মিছিলে পুলিশ আকষ্মিকভাবে হামলা চালিয়েছে। এতে ১০ নেতাকর্মি আহত হয়েছে।
সদর থানার ওসি সৈয়দ সহিদ আলম জানান, সংঘর্ষে ৩ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ৬৩ রাউন্ড রাবার বুলেট নিপে করেছে। এ ঘটনার পর শহরে টানটান উত্তেজনা বিরাজ করছে।
রাত ৮টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত জামায়াত-শিবির কর্মিদের ধরতে শহরের বিভিন্ন স্থানে পুলিশের অভিযান চলছিল। এ ঘটনার নিন্দা ও গ্রেফতারের প্রতিবাদ করেছে জামায়াত ও শিবির।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।