রেলওয়ের ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে সরকার কাজ করছে:রেলপথমন্ত্রী

রেলপথমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক বলেছেন, রেলওয়ের হারিয়ে যাওয়া ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনতে বর্তমান সরকার কাজ করছে। এবারের বাজেটে রেলওয়ের উন্নয়নের জন্য বিগত যেকোনো সময়ের চেয়ে বেশি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এতে করে যাত্রীদের সেবার মান বাড়বে। একই সঙ্গে রেলস্টেশনের উন্নয়ন, রেললাইন নির্মাণ ও নতুন নতুন ট্রেন চালু করা সম্ভব হবে। ঢাকা-চট্টগ্রাম রেলপথের লাকসাম থেকে ফেনী পর্যন্ত ৪২ কিলোমিটার ডাবল লাইন নির্মাণকাজ আগামী তিন-চার মাসের মধ্যে শেষ হবে।

গতকাল শনিবার দুপুরে কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার মিয়াবাজারে আয়োজিত কৃতী শিক্ষার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের উদ্দেশে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

এর আগে কৃতী শিার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মো. মুজিবুল হক বলেন, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে হলে বর্তমান প্রজন্মের শিক্ষার্থীদের সু-শিক্ষায় শিক্ষিত করতে হবে। তাহলেই এই দেশে হবে একটি ক্ষুধা দারিদ্রমুক্ত সোনার বাংলা। বর্তমান সরকার মতায় আসার পর থেকে দেশের মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছে। দেশের বিভিন্ন খাতের উন্নয়নই তার প্রমাণ। দেশের ব্যপক উন্নয়নের মাঝে শিক্ষা খাতের উন্নয়ন দেশে ব্যাপক প্রশংসা কুড়িয়েছে।

তিনি আরো বলেন, আমাদের সরকার মতায় আসার পর নতুন করে শিক্ষানীতি প্রণয়ন করেছে, ২৬ হাজার বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে সরকারিকরণ করে প্রায় দেড় লক্ষ শিক্ষককে সরকারি সুবিধার আওতায় এনেছে। আওয়ামীলীগই প্রথম শিশু শ্রেণী থেকে দশম শ্রেণী পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যে বই তুলে দিয়েছে। সরকার এদেশকে একটি নিররমুক্ত দেশ হিসেবে বিশ্বের নিকট পরিচয় করিয়ে দিতে চায়। ঠিক তেমনিভাবে চৌদ্দগ্রামেও ব্যাপক উন্নয়ন হচ্ছে।

শিল্পপতি মোস্তফা গোলাম কুদ্দুসের সহধর্মীনী ফজিলতুন্নেসার সভাপতিত্বে এসময় অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য রাখেন চৌদ্দগ্রাম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস সোবহান ভূঁঞা হাসান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সামছুদ্দীন আহমেদ চৌধুরী সেলিম, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম হাজারী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রাশেদা আখ্তার, চৌদ্দগ্রাম পৌরসভার মেয়র মিজানুর রহমান, সাবেক চেয়ারম্যান আলী আহমেদ, হারুন অর রশিদ, আব্দুল বারিক, মিয়া মোঃ নাছির, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও শ্রীপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শাহ জালাল মজুমদার, কালিকাপুর ইউপি চেয়ারম্যান সালাহ উদ্দীন, উজিরপুর ইউপি চেয়াম্যান মমিনুল ইসলাম, সিদ্দিকুর রহমান, খোরশেদ আলম মেম্বার, জসিম উদ্দীন সর্দ্দার, মিয়া মোঃ জহির উদ্দীন প্রমূখ।
এসময় মন্ত্রী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন। পরে মন্ত্রী একই উপজেলা রানীর বাজার হাইস্কুল মাঠে স্থানীয় আওয়ামীলীগ আয়োজিত এক জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।

এর আগে রেলপথমন্ত্রী শুক্রবার দিনব্যাপী রেলের মোটরাইজড গ্যাং ট্রলিতে করে কুমিল্লার লাকসাম থেকে চিনকি আস্তানা পর্যন্ত ওই কাজ পরিদর্শন করেন। তিনি ডাবল লাইনের কাজ দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন।
উল্লেখ্য, ওই সময় মন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন রেলওয়ের মহাপরিচালক আবু তাহের, পূর্বাঞ্চল রেলওয়ের মহাব্যবস্থাপক তাফাজ্জল হোসেন, প্রধান প্রকৌশলী এস এম লিয়াকত আলী, রেলের ডাবল লাইন কাজের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ম্যাক্সের চেয়ারম্যান আলমগীর হোসেন ।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।