সোনাগাজীতে ৯ বছরের শিশুর রহস্যজনক মৃত্যু

সোনাগাজী উপজেলার চরমজলিশপুর ইউনিয়নের পূর্ব চান্দলা গ্রামের সৈয়দ বাড়িতে ৯ বছরের এক স্কুল পড়–য়া ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।
পুলিশ ও এলাকাবাসি সূত্রে জানা যায়, পূর্ব চান্দলা গ্রামের সৌদি প্রবাসী নুর আলমের স্কুল পড়–য়া ৯ বছরের শিশু পুত্র জামশেদ আলম প্রকাশ নিহাল অসুস্থ দাদিকে দেখতে ফেনীর পুরাতন পুলিশ কোয়ার্টারস্থ ভাড়া বাসা থেকে পিতা-মাতার সাথে গত শনিবার সকালে নিজ বাড়িতে আসে। বাড়িতে এসে নিহাল ও তার এক ভাই মিলে দাদির সাথে বাড়ির দক্ষিণ পাশে সবজি খেতে গিয়ে সবজি উঠান। সবজি উঠানোর সময় দাদির সাথে দুষ্টমি করতে করতে নিহাল সবজি খেতের মাঝপথের দিকে এগিয়ে যায়। এ দিকে দাদি ও তার ভাই সবজি উঠানোর দিকে মনোযোগী হওয়ায় নিহালের কোন খবর রাখেন নি। সবজি উঠানো শেষে দাদি নিহাল কে ডাক দিলে নিহাল ডাকে সাড়া না দেয়ায় সবজি খেতে ও আশে পাশে নিহালকে খুঁজতে থাকে। হঠাৎ করে নিহাল উধাও হয়ে যাওয়ায় তাদের মনে বিরূপ প্রতিক্রিয়া ও সন্দেহের সৃষ্টি হয়। এ বিষয়টি দাদি বাড়িতে এসে সবাইকে জানালে বাড়ির সবাই মিলে নিহাল কে চতুর্দিকে খোজাখুজি করে না পেয়ে নিহালের নানা সুলতান আহাম্মদ গত রবিবার সকালে সোনাগাজী মডেল থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরী করে। ডায়েরী নংÑ৪৪৫। এ দিকে ডায়েরী করার পরও নিহালের পরিবারের সদস্যরা ও পুলিশ সদস্যরা নিহালের সন্ধানে বিভিন্ন দিকে অনুসন্ধান চালায়। অবশেষে সোমবার দুপুরে নিহালের দাদুর বাড়ির দক্ষিণ পশ্চিম পাশের একটি পাটিপাতা খেতের ডোবার মধ্যে অর্ধ ডুবন্ত একটি শিশুর লাশ বাড়ির অপর একজন লোক দেখতে পায়। বিষয়টি বাড়িতে  এসে তিনি সবাইকে জানালে নিহালের পরিবারের সদস্যরা ও ওই ডোবাতে গিয়ে লাশটি উঠালে দেখতে পায় তাদের নিখোঁজ পুত্র ফেনী আইডিয়াল স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র জামশেদ আলম নিহাল। নিহালের মৃত্যু নিয়ে সবার মধ্যে রহস্য সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে সোনাগাজী মডেল থানার এসআই স্বপন চন্দ্র বডুয়া ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহালের লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে প্রেরণ করে। মৃত্যুকালে নিহালের পরণে থ্রি-কোয়ার্টার নেভিব্লু জিন্সপ্যান্ট ও গায়ে টিয়া রঙের একটি মেকিগেঞ্জি ছিল। পুলিশ জানায়, লাশ উদ্ধারকালে নিহালের ঘাড়ের উপরে কালো রঙের দাগ ও জামা কাপড়ে, নাক দিয়ে বের হওয়া রক্ত মাখা দেখা গেছে। নিহালের মৃত্যুর সংবাদ এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে পুরো এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। শিশুপুত্র নিহালকে হারিয়ে তার পিতা-মাতা সহ পরিবারের সবাই শোকে কাতর হয়ে পড়েছেন। সন্ধ্যায় ময়না তদন্ত শেষে নিহালের লাশ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়। সূত্রে আরো জানায়, বেশ কয়েক বছর পূর্বেও উক্ত বাড়ির আরো কয়েকটি শিশুর বাড়ি থেকে হঠাৎ উধাও এর কয়েক দিন পর তাদের মৃত লাশ বাড়ির পাশে পাওয়া গেছে।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।