মাদারীপুরের কলেজ ছাত্রী অপহরণের দুই দিন পর কেরানীগঞ্জ থেকে উদ্ধার

মাদারীপুরের শিবচর থেকে কলেজ ছাত্রী অপহরণের দুই দিন পর বুধবার দুপুরে ঢাকার কেরানীগঞ্জ থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় জড়িত থাকায় দুই মহিলাসহ ৪ জনকে অপহরণকারী সন্দেহে গ্রেপ্তার করা হয়। ওই কলেজ ছাত্রী চলতি বছর এইসএসসি পরীক্ষার্থী ছিল। এ ঘটনায় শিবচর থানায় একটি অপহরণ মামলা হয়েছে। মামলার নম্বর-১১/১১.০৬.১৩ইং। পুলিশ জানায়, গত সোমবার দুপুরে মাদারীপুর জেলার শিবচর উপজেলার নূরুল আমিন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের এইচএসসি পরীক্ষার্থী বাড়ী থেকে কলেজে আসার পথে অপহরণের শিকার হয়।

এরপর বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুজির পর তাকে না পেয়ে কলেজ ছাত্রীর চাচা মোঃ রিয়াজুল ইসলাম শিবচর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেয়।

পুলিশ প্রথমে অপহরণকারীর মা আলেয়া বেগম (৪৫) ও চাচি হাওয়া আক্তারকে (৩৫) শিবচর উপজেলার ভান্ডারীকান্দি বিশাইধনি গ্রামের বাড়ি থেকে আটক করে।

পরে শিবচর থানা পুলিশ আটককৃতদের দেয়া তথ্যমতে ও অপহৃত ছাত্রীর মোবাইল কললিস্ট ধরে তার অবস্থান নিশ্চিত করে।

পরে শিবচর থানা পুলিশ ঢাকার কেরানীগঞ্জ কদমতলী এলাকার একটি বাড়ী থেকে তাকে উদ্ধার করে।

একই সময় অপহরণের মূল হোতা রনি হোসেন (২০), তার ফুপা আসলাম হোসেনকে (৪০) গ্রেপ্তার করা হয়।

অপহৃত কলেজ ছাত্রী শিবচর উপজেলার ভান্ডারীকান্দি ইউনিয়নের দক্ষিণ ক্রোকিরচর গ্রামের বাসিন্দা। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে।

মাদারীপুরের এএসপি (সার্কেল) আবুবকর সিদ্দিক ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, অপহৃত কলেজ ছাত্রীকে উদ্ধার করে অভিযুক্তদের আটক করা হয়েছে।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।