নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলায় জলদস্যু সন্দেহে গণপিটুনি, নিহত ৬

জলদস্যু সন্দেহে  নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার দক্ষিণ চরবাটা সেলিম বাজার এলাকায়গণপিটুনিতে ছয়জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় দুইজনকে গণপিটুনির পর পুলিশে সোপর্দ করেছে বিক্ষুব্ধ জনতা।

শুক্রবার সকালের ঘটনায় ঘটনাস্থলে মারা যান চারজন। হসপাতালে নেয়ার পর মারা যান আরো দুইজন। নিহতদের মধ্যে চারজনের পরিচয় পাওয়া গেছে। তারা হলেন- কালা শঙ্কর (৩০), মকসুদ (২৮), সেলিম (২৮) ও দেলোয়ার (২৮)। কালা শঙ্করের বাড়ি চট্টগ্রামে,  মকসুদের চর ক্লার্কে ও  সেলিমের বাড়ি সেলিম বাজারে। দেলোয়ারের বাড়ি সম্পর্কে জানা যায়নি।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, নিহত ও আটককৃতরা সাবেক বন ও জলদস্যু সম্রাট বাশার বাহিনীর সহযোগী হিসেবে কাজ করতেন। বাসার বাহিনীর প্রধান বাসার র্যা বের হাতে নিহত হওয়ার পর বাটা সেলিম উরির চরের জাসু বাহিনীর সঙ্গে যোগ দেন। গড়ে তোলেন নতুন বাহিনী। এরপর ডাকাতি, হত্যা ও চাঁদাবাজিসহ বিভিন্ন অপকর্ম শুরু করেন।

স্থানীয় সূত্র জানায়, শুক্রবার সকালে সেলিম বাজার এলাকায় চাঁদাবাজি করতে আসলে বিক্ষুব্ধ জনতা তাদের চারদিক থেকে ঘিরে ফেলে। এ সময় তারা উত্তেজিত জনতাকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়লে জনতা আরো উত্তেজিত হয়ে সংঘবদ্ধ হয়ে ডাকাতদের গণপিটুনি দেয়। এ সময় গণপিটুনিতে ঘটনাস্থলেই বাটা সেলিমসহ চারজন নিহত হয়। আহত হয় দুজন। পরে পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে আহতদের উদ্ধার করে পুলিশ হেফাজতে নিয়ে যায়।

ঘটনাস্থল থেকে ১২ রাউন্ড রাইফেলের গুলি, দুই রাউন্ড চাইনিজ রাইফেলের গুলি ও পাঁচ রাউন্ড শর্টগানের গুলিসহ দুইটি বন্দুক ও একটি পাইপগান উদ্ধার করে পুলিশ।

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।