ঝিনাইদহের প্রতাপপুর গ্রামে জমজমাট জুয়ার আসর

ঝিনাইদহ সদর উপজেলার প্রতাপপুর গ্রামে দিনে দুপুরে জুয়ার আসর চলছে বলে এলাকাবাসি অভিযোগ করেছে। অনেক জুয়াড়ির স্ত্রী স্বামীর জুয়া খেলার প্রতিবাদে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন বলেও জানা গেছে। অভিযোগ পাওয়া গেছে সদর উপজেলার হলিধানী ইউনিয়নের প্রতাপপুর গ্রামের সামাদ শিকদারের ছেলে খলিলুর রহমান স্থানীয় ফকির মিয়ার দোকানে জুয়ার কোট বসিয়েছে। ঝিনাইদহসহ আশপাশের জেলা থেকে নামিদামি জুয়াড়ী খলিলের এই জুয়ার আসরে অংশ নেয়। দিনে দুপুরে লাখ লাখ টাকার জুয়া খেলা হয়। প্রতিদিন জুয়ার আসর বসার কারণে এলাকায় আইনশৃংখলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটছে। জুয়ার আসরের টাকা জোগাতে রাতে চুরি, ছিনতাই ও ডাকাতি বৃদ্ধি পেয়েছে। এদিকে স্বামী খলিল জুয়া খেলায় মত্ত থাকায় তার স্ত্রী কয়েক দফা আত্মহত্যার চেষ্টা করেন বলেও গ্রামবাসি সুত্রে জানা গেছে। অভিযোগ পাওয়া গেছে কাতলামারী পুলিশ ফাঁড়ির তদন্ত কর্মকর্তা কামরুজ্জামান এই জুয়ার আসর থেকে মাসোয়ারা নেন। দিনের বেলা তাকে প্রায় প্রতাপপুর গ্রামে দেখা যায় বলে গ্রামবাসি জানিয়েছেন। জুয়ার আসর উচ্ছেদ নিয়ে এলাকাবাসি দারোগা কামরুজ্জামানের দারস্থ হলে তিনি উল্টো গ্রামবাসিকে টু-শব্দ না করতে শাসিয়েছেন। তবে দারোগা কামরুজ্জামান মাসোয়ারা গ্রহনের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। রাজনৈতিক চাপে জুয়াড়িদের সঙ্গে তিনি পেরে উঠছেন নাক বলেও তিনি স্বীকার করেন। গ্রামবাসি জুয়ার আসর উচ্ছেদ করতে পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।