রায়পুরে ক্ষুদ্ধ গ্রাহকদের বিক্ষোভ, সমাবেশ-সড়ক অবরোধ

এক ঘন্টা বিদ্যুৎ, চার ঘন্টা লোডশেডিং। বিদ্যুতের এ পরিস্থিতিতে অতিষ্ট জনগন। নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবি ও লোডশেডিংয়ের প্রতিবাদে শনিবার (১৫ জুন) সন্ধ্যা ৫ থেকে ৭ পর্যন্ত লক্ষ্মীপুরের রায়পুর-ঢাকা আঞ্চলিক মহাসড়ক অবরোধ করে রাখে ক্ষুব্ধ গ্রাহকরা। তারা বিকাল ৫ টায় পৌর শহরে মধুপুর গ্রামের আইডিয়ালসিটির মাঠে এক বিক্ষোভ সমাবেশ করে।  তারা আগামী ১৫ দিনের মধ্যে বিদ্যুতের সমস্যা সমাধান না করলে কঠোর কর্মসূচীর ঘোষনা দিয়েছেন।
এছাড়াও ক্ষুদ্ধ গ্রাহকরা বিদ্যুতের লোডশেডিংয়ের প্রতিবাদে গত বুধবার (৫ জুন) বাধ্য হয়ে বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে সড়ক অবরোধ করে। ক্ষুদ্ধ জনতা লক্ষ্মীপুর -চাঁদপুর, রায়পুর- ঢাকা অঞ্চলিক সড়কের লেংড়া বাজার এলাকায় রাস্তার ওপর গাছের গুড়ি, ইট ফেলে ও টায়ার জ্বালিয়ে এ অবরোধ করে। অবরোধে স্থানীয় এলাকাবাসী অংশ নেন।
এর প্রেক্ষিতে জরুরী ভাবে বৃহস্পতিবার (৬ জুন) উপজেলা প্রশাসন ব্যবসায়ীসহ জনপ্রতিনিধিদের সাথে তিন ঘন্টাব্যাপী রুদ্ধদার বৈঠক করেছেন। এতে বৈঠকে ১২ ঘন্টা বিদ্যুৎ সরবরাহ দেয়ারও আশ্বাস দেয় বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষ।
পৌর শহরে মধুপুর গ্রামের আইডিয়ালসিটির মাঠে এক বিক্ষোভ সমাবেশে বক্ত্যব রাখেন, বিদ্যুত প্রতিরোধ কমিটির আহবায়ক পৌর কাউন্সিলর জাকির হোসেন নোমান, যুগ্ন-আহবায়ক আওয়ামীলীগ নেতা রুমান পাটোওয়ারী, সুভাষ চন্দ্র সাহা, নুরুল আমিন ভুইয়া দুলাল ও জাহাঙ্গীর হোসেন প্রমুখ। অবরোধকারীরা নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবীতে ওই এলাকা থেখে খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে ট্রাফিক মোড় এসে সড়ক অবরোধ করেন। এসময় বাজারের ব্যবসায়ীরা দোকান-পাঠ বন্ধ রাখে সড়ক অবরোধে সামিল হয়। রাস্তার দু’পাশে দূরপাল¬ার শ শ যাত্রীবাহি বাস, মিনিবাস, ট্রাক ও সিএনজিসহ যানবাহন আটকা পড়ে দূর্ভোগের শিকার হয়।  পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করলে তোপের মুখে পড়ে। পরে উপজেলা, পুলিশ প্রশাসন ও বিদ্যুৎ কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে দুই ঘন্টা পর সন্ধা ৭টার দিকে অবরোধ তুলে নেয় বিক্ষোভকারীরা।
স্থানীয পল¬ী বিদ্যুৎ কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, রায়পুর পৌর শহর ও ১০টি ইউনিয়নে প্রায় ২৬ হাজার গ্রাহক রয়েছে। এ জন্য দৈনিক কমপক্ষে ৮ মেঘাওয়াট বিদ্যুতের প্রয়োজন। কিন্তু পাওয়া যাচ্ছে মাত্র এক থেকে দেড় মেঘাওয়াট। এ জন্য লোডশেডিং হয়।
যোগাযোগ করা হলে রায়পুর পল¬ী বিদ্যুতের (ডিজিএম) মো. জাকির হোসেন বলেন, শনিবার সকাল ৮টা থেকে ৩টা পর্যন্ত নোয়াখালীর চৌমুহনীতে বিদ্যুতের গ্রিড মেরামত ও সংস্কারের কাজ চলছিল। এসমস্যার কথা ও এসময় পর্যন্ত বিদ্যুত সরবারাহ দেয়া সম্ভব নয় বলে শহরে মাইকিং করা হয়েছে। এরপরেও গ্রাহকরা সড়ক অবরোধ ও সমাবেশ করে।  বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।