রায়পুরে ২ ডাকাতকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সপোর্দ, গুলিবিদ্ধ-১

লক্ষ্মীপুরের রায়পুর উপজেলার সিমান্তবর্তী নাগের দীঘীরপাড় গ্রামে শুক্রবার (১৪ জুন) ভোরে ২ ডাকাতকে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সপোর্দ করেছে এলাকাবাসী। বিকাল সাড়ে ৪ টায় থানায় তিন জনকে আসামী করে ডাকাতি মামলা হয়েছে।
থানায় আটক ডাকাতরা হলো- মাসিমপুর গ্রামের আদম আলীর ছেলে আন্তঃজেলার ডাকাত দলের সদস্য মো. আলমীর হোসেন- (২৫) ও কাশিমনগর গ্রামের আবুল হোসেনে ছেলে মো. রিপন- (২২)। এসময় চন্ডিপুর গ্রামের কাশেমের ছেলে মো. সুমন গুলিবিদ্ধসহ অন্য ডাকাতরা পিটুনি থেকে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।
শুক্রবার সাড়ে তিনটায় আটকৃত ডাকাতদের পরিবার গ্রামবাসীদের মেরে ফেলার হুমকি দেওয়া অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে তারা ডাকাতদের আতংকে রয়েছে।
স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা মো. মনির হোসেন ও  মো. ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী জানান, অন্য গ্রাম থেকে ডাকাতি শেষে রায়পুর-রামগঞ্জ-ফরিদগঞ্জ উপজেলার সিমান্তবর্তী নাগের দীঘীরপাড় বাজারের পাশে মদন লালের সুপারি বাগানে ৫-৭ জনের সশস্র মুখোশ পরা ডাকাত দলের এক গুলিবিদ্ধ সদস্যকে চিকিৎসা করছিল। এসময় গ্রামবাসী ইসমাইল পরাজী ও রহিম ডাকাতদের দেখে স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. সামছুল আলমসহ গ্রামবাসিদের অবহিত করেন।
পরে গ্রামবাসী সুপারী বাগান ঘেরাও করে ২ ডাকাতকে আটক করলেও গুলিবিদ্ধসহ অন্য ডাকাতরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। তাদেরকে পিটুনি দিয়ে রামগঞ্জ থানা পুলিশের হাতে সপোর্দ করেন। ডাকাতি করে নিয়ে আসা লুন্ঠিত মালামাল ভাগ-বাটোয়ারা নিয়ে সহযোগি ডাকাতদের হাতে গুলিবিদ্ধ হন অন্য ডাকাত। এসময় তাদের একটি মোটরসাইকেল জালিয়ে দেওয়া হয়। গুলিবিদ্ধ ডাকাতের নাম ও ঠিকানা জানা যায়নি।
রামগঞ্জ থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আমেনা খাতুন জানান, গ্রামবাসীর হাতে গণপিটুনির শিকার ২ ডাকাতসহ পুড়িয়ে যাওয়া মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ডাকাতি আইনে মামলা হয়েছে। গুলিবিদ্ধসহ অন্য ডাকাতদের গ্রেপ্তার ও লুন্ঠিত মালামাল উদ্ধারের ওসি স্যারসহ পুলিশ অভিযান নেমেছেন।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।