নিজ কেন্দ্রেই পরাজিত হলেন মহাজোট প্রার্থীরা

৪ সিটি করপোরেশনের মহাজোট প্রাথীদের নিজ কেন্দ্রেই ভরাডুবি হয়েছে । আওয়ামী লীগ সমর্থীত প্রার্থীদের মধ্যে সিলেটের বদরউদ্দিন আহমেদ কামরান ও তালুকদার আব্দুল খালেক নিজ কেন্দ্র ছাড়াও আশপাশের কেন্দ্রগুলোতেও হেরেছেন। ব্যতিক্রম হিসেবে রাজশাহীর দুই মেয়র প্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন ও ১৮ দলীয় প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল একই কেন্দ্রে ভোট দিলেও হেরে যান লিটন। নিজ কেন্দ্রে সবচেয়ে কম ভোটের ব্যবধানে হেরেছেন বরিশালের শওকত হোসেন হিরন।

খুলনা: খুলনা সিটি করপোরেশন (খুসিক) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেক নগরীর পাইওনিয়ার উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে খালেক ভোট দেন। এই কেন্দ্রে তালা প্রতীক নিয়ে খালেক পেয়েছেন ৫১৬ ভোট। অন্যদিকে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী মনিরুজ্জমান মনি আনারস প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৫৯৫ ভোট। মনির চেয়ে খালেক ৭৯ ভোট কম পেয়েছেন নিজ কেন্দ্রে।

সিলেট: সিলেটের আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী বদরউদ্দিন আহমদ কামরানের নিজ ভোটকেন্দ্র সরকারি পাইলট স্কুল কেন্দ্রে ভোট দিয়েছেন। এই কেন্দ্রে তিনি দেড় শতাধিক ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হয়েছেন। এছাড়া পার্শ্ববর্তী অগ্রগামী বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্র এবং কিশোরী মোহন উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র, দুর্গাকুমার কেন্দ্র, নাদিমপুর কেন্দ্র এবং কালিঘাট কেন্দ্রে ইতিপূর্বে সব নির্বাচনে কামরান বিজয়ী হলেও এবার পরাজিত হয়েছেন।

এদিকে সিলেটের অধিকাংশ কাউন্সিলর পদে বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। ছাত্রলীগ ও যুবলীগের সবেক নেতারাও পরাজিত হয়েছেন।

রাজশাহী: রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রধান দুই মেয়রপ্রার্থী এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন ও মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ভোট দিয়েছেন একই কেন্দ্রে। নগরীরর উপ-শহর স্যাটেলাইট স্কুল কেন্দ্রে ভোট দেন তারা। এই কেন্দ্রেও মহাজোট প্রার্থী সাবেক মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন ৪২৬ ভোট পেয়েছেন। অন্যদিকে বুলবুল পেয়েছেন ৪৭৯ ভোট।

বরিশাল: বরিশালের নুরিয়া হাই স্কুল কেন্দ্রে ভোট দেন শওকত হোসেন হিরন। নিজ কেন্দ্রে হিরন ৪৩৫ ভোটের ব্যবধানে ১৮ দলীয় জোট প্রার্থী আহসান হাবীব কামালের কাছে হেরেছেন। হিরনের নিজ কেন্দ্র আহসান হাবিব কামাল পেয়েছেন ১১৫৩ ভোট।

এছাড়াও চার সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী সমর্থিত মেয়র প্রার্থীদের পাশাপাশি বেশিরভাগ কাউন্সিলর প্রার্থীদেরও নিজ কেন্দ্রে ভরাডুবি হয়েছে।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।