ভালুকায় মাটি চাপা পড়ে ২ শ্রমিকের মর্মান্তিক মৃত্যু

ময়মনসিংহের ভালুকায় কারখানার বর্জ্য অপসারনের ড্রেন তৈরীর সময় মাটি চাপা পড়ে ২ শ্রমিকের  মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আরো ২ শ্রমিক গুরুতর  আহত হয়েছেন। রবিবার বিকেল তিনটার দিকে হবিরবাড়ী জামিরদিয়া মাষ্টারবাড়ী এলাকায় ঘটনাটি ঘটে। নিহতরা হলেন সুনামগঞ্জ জেলার আইয়ুব আলীর স্ত্রী খোদেজা খাতুন (৩৮) ও ময়মনসিংহের হালুয়াঘাটের আমীর উদ্দিনের ছেলে শফিকুল ইসলাম (৪২)। পুলিশ নিহত ২ শ্রমিকের লাশ উদ্ধার করেছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, ময়মনসিংহের ভালুকায় উপজেলার হবিরবাড়ী জামিরদিয়া মাষ্টারবাড়ী এলাকায় অবস্থিত নাসির গ্লাস ইন্ড্রাস্ট্রি, কালার মাস্টার কোম্পানী, রিদিশা টেক্সটাইল ও বাদশা স্পিনিং মিল কোম্পানীর বর্জ্য অপসারনের জন্য ড্রেন তৈরীর কাজ করছিল ২০/২৫ জন শ্রমিক।

মাষ্টারবাড়ী থেকে প্রায় দুই কিলোমিটার দুরে একটি খালের সাথে শিল্প এলাকার বর্জ্য সংযোগের ব্যবস্থঅ করা হচ্ছিল। ড্রেন খনন করার সময় ১০ ফুট নীচে মাটি চাপা পড়েন ৪ শ্রমিক।  এর মধ্যে ২ শ্রমিককে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা গেলেও ঘটনাস্থলেই মারা যান  সুনামগঞ্জের খোদেজা খাতুন ও  হালুয়াঘাটের শফিকুল ইসলাম।

আহত দুইজনকে মাওনার একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

ভালুকা মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (ওসি) আব্দুল মোতালেব মিয়া জানান, নাসির গ্লাসসহ ৫টি কোম্পানীর বর্জ্য অপসারনের জন্য ঠিকারদারি কাজের মাধ্যমে ড্রেন তৈরীর কাজ চলছিল। এ সময় মাটি চাপা পড়ে ২ শ্রমিকের মৃত্য হয়। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান মোর্শেদ ও ছাত্রলীগ নেতা বাচ্চু মিয়ার তত্ত্বাবধানে ওই কাজ করা হচ্ছিল।

এ ব্যাপারে  ইউপি চেয়ারম্যান মোর্শেদ জানান, আমি কোম্পানীগুলো দেখাশোনা করি। ঠিকাদারি দায়িত্ব পেয়েছে ভালুকা উপজেলার হবিরবাড়ী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক বাচ্চু মিয়া।

ছাত্রলীগ নেতা বাচ্চু জানান, আমরা কাজটি মনির হোসেন নামের একজনকে দিয়েছিলাম। তবে দুর্ঘটনা তো ঘটতেই পারে। দুর্ঘটনায় তো আর কারো হাত থাকে না।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।