ফের ডাক দিলে আগের চেয়ে দ্বিগুণ লোকের সমাগম হবে: আল্লামা শফী

হেফাজতে ইসলামের  আমীর আল্লামা শাহ আহমদ শফী বলেছেন, ঈমানদার মুসলমানরা মিথ্যা কথা বলতে পারে না। যারা আল্লার কোরআন বুকের ভিতর ধারণ করে তারা কখনো কোরআন পোড়াতে পারে না। তিনি বলেন, ‘আমরা তো কোরআন রক্ষর অন্দোলনে নেমেছি। গত ৫ মে কোরআন পোড়ানোর ঘটনার সাথে অহেতুক হেফাজতে ইসলামের ওপর মিথ্যা অপবাদ দেওয়া হয়েছে।’ আল্লামা শফী বলেন, ‘হেফাজত কখনও শেষ হবে না। হেফাজতের বরকত শুধু বাংলাদেশে নয়, সারা বিশ্বে। এখন ডাক দিলে আগের চেয়ে দ্বিগুণ লোকের সমাগম হবে।’

‘অনেকে মনে করেন মোল্লারা কিছু বুঝে না। মোল্লারা যে, বুঝে তা তারা জানে না। তবে মোল্লারা গদি চায় না, বরং গদিতে যারা আছে তাদেরকে মোল্লা বানাতে চায়’ যোগ করেন তিনি।

চার সিটি নির্বাচনে ফলাফলকে ইঙ্গিত করে হেফাজতের আমির বলেন, ‘হেফাজত যা আশা করেছে, নির্বাচনে তা হয়েছে।’

এজন্য তিনি আল্লাহর দরবারে শোকরিয়া আদায় করেন এবং সামনে অনুষ্ঠিতব্য গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ইসলামের খেদমত করার মত লোক নির্বাচিত হওয়ার জন্য দোয়া করেন।

অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি হেফাজতে ইসলামের কেন্দ্রীয় কমিটির নায়েবে আমীর আল্লামা মহিবুল্লাহ বাবুনগরী বলেন, বর্তমান সরকার ইসলামকে ধ্বংস করার জন্য যে আইন প্রণয়ন করছে তা এদেশের তৌহিদি জনতা কখনও মেনে নিবে না।

তিনি বলেন, ‘৫ মে আমরা যুদ্ধ করতে যায়নি। মুসলমানদের ঈমান রক্ষার কাজ করতে গিয়েছি। ৯০ ভাগ মুসলমানের দেশে একজন মুসলমান থাকা পর্যন্ত নাস্তিকরা এদেশে থাকতে পাবরে না।’

বুধবার বিকেল সাড়ে ৫টায় ডালিয়া-নুসরাত মেমোরিয়াল ট্রাস্ট কর্তৃক পরিচালিত হাটহাজারী পৌরসভার মিরের খিল গ্রামে আমাতুন নূর নূরানী তা’লীমুল কুরআন মাদ্রাসার মিলয়াতনে হেফ্‌জ সম্পন্নকারী হাফেজদের পাগড়ী প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে হেফাজত নেতারা এসব কথা বলেন।

বিএনপি চেয়ারপাসনের উপদেষ্টা ও সাবেক মন্ত্রী মীর মো. নাছিরউদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সমিতির সাবেক সভাপতি ড. ছিদ্দিক আহমদ চৌধুরী, রাষ্ট্রবিজ্ঞানী ড. হাসান মাহামুদ, ড. ফোরকান, নানুপুর মাদ্রসার মোহাদ্দেস শেখ আহামদ, ইছাপুর তাজবিদুল কোরআন মাদ্রাসার মহাপরিচালক মাওলানা জাহেদ উল্লাহ, হাটহাজারী কলেজের অধ্যক্ষ মির কফিল উদ্দিন, আবদুর রহমান উদ্দিন, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সোলায়মান মঞ্জু প্রমুখ।

মাদ্রসার পরিচালক হাফেজ মাওলানা মো. আরিফ উদ্দিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভা শেষে মাদ্রাসার হেফ্‌জ সম্পন্নকারী ২০ জন হাফেজকে পাগড়ি প্রদান করেন এবং দেশ ও জাতির কল্যাণ কামনা করে আখেখি মুনাজাত পরিচালনা করেন হেফাজত আমির।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।