দাউদকান্দিতে পুলিশের তদন্ত রিপোর্ট মিথ্যা দেয়ায় এলাকায় তোলপাড়

দাউদকান্দি উপজেলার লখাইতলী গ্রামের মালোয়েশিয়া প্রবাসীর স্ত্রী রহিমা বেগমের আদালতে দায়ের করা মামলার তদন্ত রিপোর্ট দাউদকান্দি থানা পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো: নাসির উদ্দিন মৃধা রহস্যজনক কারনে কুমিল্লা সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী আদালত -০৩ এর সি,আর নং -১৬৭/১৩ মামলার মিথ্যা, রিপোর্ট আদালতে প্রেরণ করায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

এব্যাপারে মামলার বাদী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, দাউদকান্দি উপজেলার মোহাম্মদপুর (পূর্ব) ইউনিয়নের লখাইতলী গ্রামের আব্দুর রহিম মোল্লা ওয়ারিস সূত্রে মালিক ও দখলদার থাকা অবস্থায় দোকান নির্মাণ করে। উক্ত দোকান ভায়রা ভাই হযরত আলীর নিকট ভাড়া দিয়ে মালোশিয়া চলে যায়। কিছু দিন পর মালয়েশিয়া থেকে পাঠানো টাকা দিয়ে আরো কয়েকটি দোকান নির্মাণ করা শুরু করলে হযরত আলী উক্ত রহিম মোল্লার মালিকানাধীন দোকানের মালিকানা দাবী করে একটি বির্তকের সৃষ্টি করে।

নির্মাণাধীন দোকান ঘরের দেয়াল গত ৪-৫-১৩ইং তারিখে হযরত আলী গং ভেঙ্গে দেয়া এবং রহিমা বেগমকে মারধর করায় রহিমা বেগম বাদী হয়ে গত ৭ মে ১৩ইং তারিখে কুমিল্লার  সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী আদালত -০৩ এ হযরত আলী (৫০) পিতা মৃত মাতাববর আলী মোল্লা, আব্দুল কাদের মোল্লা (৩০) পিতা হযরত আলী, আবু মুসা (২২) পিতা মৃত হাকিম মোল্লা, দুলাল মোল্লা (৪০) পিতা মৃত আম্বর আলী, শাহজালাল (৪৫) পিতা মৃত কফিল উদ্দিন, দুলাল (৩৫) পিতা মালেক মোল্লা সর্ব সাং লখাইতলি, দেলোয়ার  (২৫) পিতা রেনু মিয়া সাং দিতপুর, আব্দুল লতিফ(৩৫) পিতা মৃত চানঁ মিয়া সাং মালিখিল সহ ১০/১২ জনকে অজ্ঞাত আসামী করে মামলা দায়ের করেন। মামলা নং সি আর ১৬৭/১৩।

মামলা দায়েরের পর আদালতের ৫২০/০৭/০৫/১৩ইং স্বারকের মাধ্যমে তদন্ত স্বাপেক্ষে রিপোর্ট প্রদানের আদেশ দাউদকান্দি থানাকে প্রদান করা হয়। সে মতে উক্ত মামলার তদন্তভার গ্রহন করেন থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো: নাসির উদ্দিন মৃধা এবং তিনি উক্ত ঘটনা স্থল সরে জমিনে পরিদর্শন ও তদন্ত করেন।

কিন্তু মামলার স্বাক্ষী সাইফুল ইসলাম পিতা শহীদুল্লাহ, দেলোয়ার হোসেন পিতা মোখলেছুর রহমান উভয় সাং টামটা ও শাহপরান পিতা জিন্নাতআলী সাং স্বপাড়া সাংবাদিকদের জানান, তদন্ত কর্মকর্তা রহস্য জনক কারণে প্রকৃত ঘটনা আড়াল করে মিথ্যা বানোয়াট ও ভুয়া রিপোর্ট প্রদান করে এলাকার জনগনকে উত্তেজিত করে তোলে।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।