কুমিল্লায় বাবার হাতে ৩ মাসের সন্তান খুন

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে শুক্রবার মাহিয়া আক্তার মহিমা নামের ৩ মাস ৪ দিন বয়সের কন্যা সšতানকে আঁছড়ে হত্যা করেছেন পাষন্ড পিতা আবদুল মমিন। নিহত মাহিয়া আক্তার মহিমা চৌদ্দগ্রাম উপজেলার মুন্সিরহাট ইউনিয়নের পেঁছাইমুড়ি গ্রামের সিএনজি চালক আবদুল মমিনের মেয়ে।

শুক্রবার সকালে পাষন্ড পিতার হাতে শিশুটির মৃত্যু হয়। বিকালে শিশুটির মৃতদেহ ময়না তদন্তেতর জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ (কুমেক) হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়। রাতে পাষন্ড পিতাকে অভিযুক্ত করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন শিশুটির মাতা সেলিনা বেগম।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শিশু কন্যা মহিমার কান্নাকাটির শব্দে পাষন্ড পিতা সিএনজি চালক আবদুল মমিন সকালে ঘুম থেকে ওঠেন। মমিনের ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায় তিনি ক্ষিপ্ত হয়ে মহিমাকে আঁছাড় মারলে ঘটনাস্থলে শিশুটির মৃত্যু হয়। তারপর ঘাতক আবদুল মমিন পালিয়ে যান। খবর পেয়ে পুলিশ দুপুরে লাশটি উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়। বিকালে শিশুটির মৃতদেহ ময়না তদšেতর জন্য কুমেক হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়। রাতে পাষন্ড পিতাকে অভিযুক্ত করে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়।

এদিকে শিশুটির মাতা সেলিনা বেগম অভিযোগ করে বলেন, “গত ১৭ মার্চ সকালে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালে মহিমার জন্ম হয়। ওইদিন দুপুরে আবদুল মমিন মেয়ে মহিমাকে হাসপাতালের আয়া খুরশিদার কাছে বিক্রি করেন। তখন আমার বিরোধিতার কারণে আয়া খুরশিদা ১৮ মার্চ মহিমাকে ফেরত দেন। এ ক্ষোভে দীর্ঘদিন ধরে আবদুল মমিন তাকে হত্যার চেষ্টা চালিয়ে আসছিলেন। তিনি আগেও এক বিয়ে করেছিলেন। তার অত্যাচার সহ্য করতে না পেরে ওই স্ত্রীও চলে যান।”

এছাড়া চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) আকুল চন্দ্র বিশ্বাস জানান, “রাতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। আমরা আসামিকে গ্রেফতার করার চেষ্টা করছি।”


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।