মহেশখালীতে চাঁদাবাজী মামলা থেকে নিজেদের রক্ষার জন্য বিচারকরে বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ

মহেশখালীর শাপলাপুরে  ত্রাসখ্যাত জৈনক মেম্বার রশিদ মিয়া সহ অপর ছয় জনের বিরুদ্ধে মহেশখালী থানায় চাঁদাবাদী মামলা হওয়ার পর থেকে দৌড় ঝাঁপ শুরু করে দিয়েছে আওয়ামীলীগের নামধারী নেতা কর্মীরা  । উক্ত দায়ের করা চাঁদাবাজী মামলা  থেকে নিজেদেরকে রক্ষা করার জন্য ত্রাসখ্যাত ওই মোখুশধারিরা  এক বিচারকের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রমূলক অশ্লিল ভাষায় শ্লোগান ও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ দিয়ে বিক্ষোভ ও প্রতিবাদ সভা করে ।
এলাকাবাসির সূত্রে জানা যায়, শাপলাপুরের গ্রাম গঞ্জ থেকে আওয়ামীলীগের প্রতিবাদ সভার বাহানা দিয়ে মাথা পিচু তিনশত টাকা ও যাতায়ত গাড়ী ফ্রি করে দেয় ওই সন্ত্রাসী চক্র । শাপলাপুর  ইউনিয়নের অদুরে মহেশখালী উপজেলার বটগাছতলায় এই প্রতিবাদ সামাবেশের আয়োজন করে । উপস্থিত জনতা জৈনক নাজির হোসেনের পুত্র বিচারক আলী আক্কাসের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশের বিষয়টি জানতে পেরে সমাবেশ স্থল ত্যাগ করে । এবং সাধারণ জনতা একজন সৎ বিচারকের বিরুদ্ধে প্রতিবাদসভা করায় ক্ষুব্ধ হয়ে প্রতিবাদ কারীদের বিরুদ্ধে কুরুচি পুর্ণ  বিভিন্ন মন্তব্য করেন। আওয়ামীলীগের নামধারি কিছু নেতা পরিচয়ী ও সরকারী পুলিশের চাকুরীচ্যুত জসিম উদ্দিনসহ তার ভাড়াটে গোন্ডা বাহিনীদের দিয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ শেষ করে । উক্ত  প্রতিবাদ সমাবেশে একজন বিচারকের বিরুদ্ধে মানহানিকর বিভিন্ন ধরনের অপ প্রচার ও  অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ  করে নামধারী আওয়ামীলীগের নেতা কর্মীরা । পরে সমাবেশ শেষে ওই ব্যক্তি সহ  তার ভাড়াটিয়া সাঙ্গা পাঙ্গাদের নিয়ে একজন সৎ মেধাবী বিচারকের বিরুদ্ধে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ে লিখিত অভিযোগ জমা দেয় । এসব ষড়যন্ত্রকারী চক্র সংঘ  বদ্ধ হয়ে নিজেদের অপকর্ম থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য একজন বিচারকের বিরুদ্ধে সড়যন্ত্র চালিয়ে আসচ্ছিল বলে এলাকাবাসী জানায় । ওই চক্রের বিরুদ্ধে দায়ের করা চাঁদাবাজী মামলার সাথে তার কোন তদবির বা সম্পর্ক  নেই বলে মনে করেন উপজেলার সচেতন মহল। এদিকে জনমনে প্রশ্ন স্বেচ্ছাচারিতা, দুর্নীতিÑচাঁদাবাজ ও বিভিন্ন অপকর্মের গডফাদারদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা কি অন্যায়? প্রসাশন কি এসব অপরাধিদের আশ্রয় পশ্রয় দিয়ে যাবে? তাদের হাত থেকে কি সাধারণ মানুষ রক্ষা পাবে না ? তারা কি সবসময় আইনের   উর্ধে রয়ে যাবে? সামাজে নির্যাতিতরা তাদের হাত থেকে রক্ষা পাবেনা ? সাধারণ জনতার এইসব প্রশ্ন সংশ্লিষ্ট প্রসাশনের প্রতি । দয়াকরে আপনারা এমন ব্যবস্থা নিবেন  যাতে করে এসব অপরাধীদের হাত থেকে নির্যাতিত সমাজ রক্ষাপায় । এ বিষয়ে জেলার সচেতন মহলের জোর দাবী যারা এসব অপকর্মের কর্মীদের অশ্রায় পশ্রয় দিয়ে আসছে অপরাধী সহ তাদের বিরুদ্ধে আইনানুক ব্যবস্থা গ্রহন করা হোক ।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।