কুষ্টিয়ায় চরমপন্থীদের গুলিতে নিহত ২

কুষ্টিয়া খোকসা উপজেলার জানিপুর ইউনিয়নের শেখপাড়া বিহারিয়া গ্রামে পাওনা মজুরি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে চরমপন্থীদের গুলিতে ২ জন নিহত ও ৩ জন আহত হয়েছেন। এ ঘটনায় কুষ্টিয়ার খোকসা, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ও রাজবাড়ী পাংশা এলাকায় অভিযান চালিয়ে খোকসা থানা থেকে ৫ চরমপন্থীকে আটক করেছে পুলিশ। পুলিশ, এলাকাবাসী ও নিহতের স্বজনরা জানায়, রোববার রাত সাড়ে এগারটার দিকে কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলার জানিপুর এলাকার শেখপাড়া বিহারিয়া এলাকায় হঠাৎ করেই সশস্ত্র চরমপন্থীরা হানা দেয়।

ওই এলাকার জনৈক রমজানের কাছে শ্রমিকের পাওনা টাকার অজুহাতে হামলা চালায় ১০ থেকে ১৫ জনের সশস্ত্র চরমপন্থী দল। কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে সৃষ্টি হয় উত্তেজনা।এ সময় বিভিন্ন বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসে এলাকাবাসীর। অবস্থা বেগতিক দেখে চরমপন্থীরা শুরু করে এলোপাথাড়ি গুলি। গুলিতে ঘটনাস্থলেই নিহত হয় বিহারিয়া গ্রামের মৃত সাদেক আলীর ছেলে আবু তালেব (৫৫) ও আতিয়ার রহমান আতাই আলীর ছেলে শরিফুল (৩২)। আহত হয় অন্তত ৩ জন।

এরা হলেন- একই গ্রামের রমজান সর্দার (৪৫) ইসমাইল মন্ডল (৪০) ও জীবন (২৫)। খবর পেয়ে খোকসা থানা পুলিশ নিহতদের লাশ উদ্ধার করে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এই নৃশংস জোড়া হত্যাকাণ্ডসহ হতাহতের ঘটনায় এলাকায় আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে।

প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা পরিদর্শন করেছেন।রাতেই অভিযান চালিয়ে রাজবাড়ীর পাংশা ও কুষ্টিয়ার খোকসা এলাকা থেকে ৫ চরমপন্থীকে আটক করা হয়েছে হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে।

কুষ্টিয়া খোকসা থানার অফিসার ইনচার্জ হরেনন্দ্রনাথ সরকার জানান, এ ঘটনায় কুষ্টিয়া খোকসা থানায় রমজান আলী বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছে।

কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার মফিজ উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, “আটককৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। এ ঘটনায় আরো যারা জড়িত রয়েছেন তাদের অটক করে আইনের কাছে সোর্পদ করা হবে।”

এদিকে, লাশের ময়নাতদন্ত শেষে নিহতদের পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হয়েছে।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।