চট্টগ্রামে সংঘর্ষে ২ শিশু নিহতের ঘটনায় যুবলীগে-ছাত্রলীগের ৪০ নেতাকর্মী আটক

চট্টগ্রামে টেন্ডার নিয়ে যুবলীগে-ছাত্রলীগের সংঘর্ষে দুজন নিহত হওয়ার ঘটনায় সরকারি দলের অংগ সংগঠন দুটির ৪০ নেতাকর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুরে নগরীর বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। আটকদের মধ্যে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সহ-সম্পাদক সাইফুল আলম লিমন ও যুবলীগ নেতা হেলাল উদ্দিন বাবর গ্রুপের সেকেন্ড ইন কমান্ড দেলোয়ার হোসেন দেলুও রয়েছেন।

কোতোয়ালী থানার ওসি মহিউদ্দিন সেলিম কে জানান, এ ঘটনায় হত্যা মামলা দায়ের করা হবে।এখন পর্যন্ত ৪০ জনকে আটক করা হয়েছে। অভিযান অব্যাহত আছে।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ রেলওয়ের পূর্বাঞ্চলের তিনটি উন্নয়ন প্রকল্পের টেন্ডার জমাদান নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে যুবলীগ-ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে শিশুসহ দুইজন মারা গেছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। সোমবার দুপুর ১২টার দিকে রেলওয়ের প্রধান কার্যালয়ের ( সিআরবি) কাছে চৌরাস্তার মোড় এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আরমান হোসেন ( ৯) একজন পথশিশু বলে জানা গেছে। অন্যদিকে গুলিবদ্ধ হয়ে হাসপাতালে নেয়ার পর মৃত ঘোষিত ছাত্রলীগ ক্যাডার সাজুর ( ২৮) বিস্তারিত পরিচয় জানা যায়নি।

বাংলাদেশ রেলওয়ে সূত্র জানায়, সিআরবিতে অবস্থিত রেলের প্রধান প্রকৌশলীর কার্যালয়ে তিনটি উন্নয়ন প্রকল্পের জন্য আহুত দরপত্র দাখিলের শেষ সময় ছিল আজ দুপুর ১২টা। মেসার্স রয়েল অ্যাসোসিয়েট নামে একটি প্রতিষ্ঠানের দরপত্র জমাদানকে কেন্দ্র করে মূলত যুবলীগের হেলাল উদ্দিন বাবর গ্রুপ আর ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সহ-সম্পাদক সাইফুল আলম লিমন গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। দরপত্র জমার সময়সীমা শেষ হবার আগেই উভয়পক্ষ সিআরবি এলাকা থেকে বেরিয়ে এসে চৌরাস্তার মোড়ে  অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে পরস্পরের ওপর আক্রমণ করলে শুরু হয় বন্দুকযুদ্ধ। এতে দুজন নিহত হন।


সম্পাদনা: শামীম ইবনে মাজহার,নিউজরুম এডিটর

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।